Press "Enter" to skip to content

“হিন্দুরা কখনোই আতঙ্কবাদী হতে পারে না, উচ্চশিক্ষিত মুসলিমরা ২০১৯ সালে বিজেপিকে ভোট দেবে”: আতিফ রাশিদি, মুসলিম রাজনীতিবিদ।

হিন্দু আতঙ্কবাদ বলে কিছু হয়না, পুরোটাই সুপরিকল্পিত প্ল্যান হিন্দুদের বদনাম করার- এমনটাই বললেন মুসলিম রাজনীতিবিদ আতিফ রাশিদি। এক বিশেষ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে উনি বিষয়টি বিস্তারিত করে বলেন ভারতের মুসলিমরা বিগত ৫০ বছর ধরে এক তরফা কংগ্রেসকে ভোট দিয়ে আসছে। কংগ্রেস মুসলিমদের উন্নয়ন করেনি কিন্তু মুসলিমদের মাথায় এটা ঢুকিয়ে রেখেছে যে, যদি বিজেপি।আসে তাহলে মুসলিম শেষ। অটল বিহারী হোক বা আডবাণী হোক বা বর্তমানের মোদী হোক, সকলকেই মুসলিমদের চোখে ভিলেন বানিয়ে রেখেছিল কংগ্রেস ও মিডিয়া। তাই মুসলিমরা এই ৫০ বছর এক তরফা কংগ্রেসকে ভোট দিয়ে এসেছে তবে কোনো উন্নতি সরকার করেনি। এখনও বেশিরভাগ মুসলিম রিস্কা চালিয়ে, গাড়ির পাম্পচার সারিয়ে জীবন যাপন করে।

একতরফা কংগ্রেসকে ভোট দেওয়ার পরেও কংগ্রেস কোনো উন্নতি করেনি এটা লক্ষ করে মুসলিমরা কংগ্রেস থেকে ছিটকে অন্য বিকল্প খুঁজে নিয়েছে। বিজেপির উপর কাল্পনিক ভয় থাকার জন্য মুসলিমরা কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে না গিয়ে আম আদমি পার্টি, তৃণমূল কংগ্রেস, বামপন্থীদের সাথে জুড়তে শুরু করেছে।এই অবস্থায় কংগ্রেস নিজের ভোট ব্যাঙ্ক হাত ছাড়া হতে দেখে কংগ্রেস ও কংগ্রেস পালিত মিডিয়া নতুন গল্প হিন্দু আতঙ্কবাদ শব্দের উদ্ভব ঘটিয়েছে।

আতিফ রাশিদি বলেন, উচ্চশিক্ষিত ও দেশ নিয়ে সচেতন মুসলিমরা এখন ধীরে ধীরে বিজেপির দিকে ঝুঁকছে। যদিও বেশিরভাগ মুসলিম এখনো বিজেপিকে ভোট দেবে না, কারণ তাদের মধ্যে শিক্ষার অভাব থাকায় তাদের চিন্তাও সংকীর্ণ। আসিফ রাশিদি কট্টরপন্থী ও ধার্মিক উগ্রবাদীদের উপরেও নিশানা করেন। উনি বলেন দেশে আমির খান, নাসিরউদ্দিনের মতো লোকেরাও রয়েছে যারা হিন্দুদের জন্য সর্বোচ্চ স্থানে পৌঁছেছে এবং আজ হিন্দুদের সাথে বেইমানি করছে।

রাশিদি বলেন আমির খান, নাসিরউদ্দিন আজ যে স্থানে পৌঁছেছেন সেটা দেশের হিন্দুদের জন্যেই। হিন্দুরা ধর্ম বৈষম না দেখে উনাদের সিনেমাকে আপন করেছে। কিন্তু আজ হিন্দু বহুল দেশে নিজেকে অসুরক্ষিত বলে ভারত জননীর অপমান করছে আমিরের মতো লোকেরা।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.