Press "Enter" to skip to content

সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায়কে স্বাগত জানাচ্ছে পুরো দেশ! অযোধ্যায় সরযূ নদীর তীরে হলো মহাআরতী।

শনিবার সুপ্রিম কোর্ট ৫০০ বছর ধরে চলে অযোধ্যায় বিতর্ক নিয়ে সর্বসম্মতিক্রমে রায় দিয়েছে। শীর্ষ আদালতের এই সিদ্ধান্ত রাম মন্দির নির্মাণের পথ সাফ করে দিয়েছে।
শীর্ষ আদালত নতুন মসজিদটি নির্মাণের জন্য সুন্নী ওয়াকফ বোর্ডকে আলাদা স্থানে পাঁচ একর জমির জমি জোগানোর জন্য কেন্দ্র সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে। এই সিদ্ধান্তের পরে আজ অযোধ্যায় সরযূ নদীর তীরে মহা আরতি করা হয়েছে। আরতি চলাকালীন পরিষ্কারভাবে দেখা গেছে যে কীভাবে লোকেরা সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে। জনসাধারণের পাশাপাশি সন্ত সমাজেও যথেষ্ট উৎসাহ ছিল।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শনিবার সন্ধ্যায় অযোধ্যা সংক্রান্ত রায় ঘোষণার পর জাতিকে ভাষণ দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছিলেন যে আদালত অযোধ্যা নিয়ে রায় দিয়েছে। এর পিছনে রয়েছে কয়েকশ বছরের ইতিহাস। পুরো দেশের ইচ্ছা ছিল এই বিষয়টি আদালতে প্রতিদিন শুনানি হোক এবং আজ সিদ্ধান্ত এসে গেছে। প্রধানমন্ত্রী মোদী আরো বলেছিলেন যে কয়েক দশক ধরে বিচার প্রক্রিয়া এবং সেই প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। গোটা বিশ্ব বিশ্বাস করে যে ভারত বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশ। রায় ঘোষণার পরে, প্রতিটি বিভাগ যেভাবে খোলামেলাভাবে এটিকে মেনে নিয়েছে, তাতে ভারতের ঐতিহ্য দেখা যায়।

কেন্দ্র ও রাজ্যে দু জায়গায় শক্তিশালী সরকার আছে যার কারণে আদালতও কোনো চিন্তা না করেই রায় দিতে পেরেছে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ এই ধরণের সংবেদনশীল মামলার ক্ষেত্রে দেশের সুরক্ষা নিয়ে প্রশাসনকে খুবই সক্রিয় হয়ে কাজ করতে হয়। আদালত মন্দির নির্মাণের জন্য কেন্দ্র সরকারকে একটা ট্রাস্ট নির্মাণ করতে বলেছে। সেই ট্রাস্টের নেতৃত্বে মন্দির নির্মাণ করা হবে। ট্রাস্টের নির্মাণ কেন্দ্র সরকার করবে, সেহেতু আদালত নির্দেশ দিয়েছে ৩ মাসের মধ্যে সমস্থ পরিকল্পনা তৈরি করে নিতে।

you're currently offline