Press "Enter" to skip to content

আগ্রা থেকে গ্রেফতার ৩ অবৈধ বাংলাদেশি! টাকা নিয়ে রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশিদের বর্ডার পার করাতো এই তিনজন।

উত্তরপ্রদেশের তাজনগরী আগ্রা থেকে একটা বড়ো খবর সামনে আসছে। সেখানে ৩ বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যারা অবৈধভাবে ভারতে ঢুকেছিল। শুধু এই নয় এরা অন্য বাংলাদেশিদের অবৈধভাবে প্রবেশ করানোর জন্য টাকা নিতো। অর্থাৎ টাকা নিয়ে ভারতে অবৈধ বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা মুসলিম ঢোকানোর কাজ করতো। জানিয়ে দি, বাংলাদেশ থেকে বহু মুসলিম অবৈধভাবে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, আসাম ইত্যাদি রাজ্যে ঢুকে পড়ে। পশ্চিমবঙ্গের দুই ২৪ পরগনার বহু গ্রাম এখন বাংলাদেশি মুসলিমদের আগমনের ফলে মুসলিম বহুল হয়ে পড়েছে।

 

শুধু এই নয় ধীরে ধীরে বহু স্থানের ইকোনমি এই বাংলাদেশিদের হাতে চলে গেছে। পশ্চিমবঙ্গের বহু রেলস্টেশন এর পাশে এদের বস্তি দেখা যায়। যেখানে গেলে এদের কথাবার্তা শুনে চেনা চেনা লাগলেও চিনতে পারা যায় না। অর্থাৎ এরা বাংলাদেশ থেকে আগত এবং নান বাংলার উপভাষায় কথা বলে। তবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার এদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয় না বলে অভিযোগ সামনে আসে। উল্টে পশ্চিমবঙ্গে এমন কিছু সংগঠন তৈরি হয়েছে যারা পশ্চিমবঙ্গ থেকে হিন্দিভাষীদের তাড়াতে ব্যাস্ত। কিন্তু অবৈধ বিদেশীদের তাড়াতে সরকার বা কোনো সংগঠন পশ্চিমবঙ্গে দেখা নেই।

এখন এই অবৈধ বাংলাদেশিরা ভারতের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছে। সদর বাজার থানা পুলিশ ৩ জন বাংলাদেশি মুসলিমকে গ্রেপ্তার করেছে। তারা সকলেই ময়লা-আবর্জনা ফেলে তাদের পরিবার চালাতো। একই সাথে টাকার বদলে অন্য বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গাদের রাজ্যে ঢুকিয়ে দিত। ১০ হাজার টাকার বদলে এরা বর্ডার পার করানোর কাজ করতো। থানা সদরের ইনচার্জ পরিদর্শক কমলেশ সিংহ জানান, গ্রেপ্তার অভিযুক্তদের মধ্যে ডোনার ওরফে সাইদুলুল ইসলাম, রবিবুল ও মুনারা বেগম। ডোনার বরনাদি, বাংলাদেশের জসারের অভয়পুরের বাসিন্দা। সে রোহাতা খালের পাশের একটি কুঁড়েঘরে বাস করছিল। গোপনীয় তথ্য পাওয়ার পর পুলিশ তিনজনকে ধরে ফেলে।

you're currently offline