Press "Enter" to skip to content

মোদী সুনামি থেকে নিজের আসন বাঁচাতে পারলেন না কংগ্রেসের ৯ জন পুর্ব মুখ্যমন্ত্রী।

লোকসভার নির্বাচনে পার্টি ঐতিহাসিক সাফল্য পেয়েছে। পার্টি এই প্রথম বার নিজের শক্তিতে ৩০০ সংখ্যা পার করে নিয়েছে। মোদী ঝড়ের সামনে বড় বড় দ্বিগজ নেতা ধরাশায়ী হয়ে গেছে। ঝড় এত প্রকান্ড ছিল যে কংগ্রেসের ৯ পূর্ব মুখ্যমন্ত্রী নিজের আসন পর্যন্ত বাঁচাতে পারেনি।

ভুপেন্দ্র হুড্ডা: কংগ্রেসের এই দ্বিগজ নেতা ৪ বার সাংসদ এবং ২ বার হরিয়ানায় মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু এবার হরিয়ানায় সোনিপদ থেকে লড়াই করে নিজের আসন বাঁচাতে পারেননি। ভুপেন্দ্র সিং হুড্ডা প্রচন্ড লড়াই করেও রমেশ কৌশিকের সামনে নিজের আসন বাঁচাতে পারেননি। ভুপেন্দ্র সিং হুড্ডা ১৬৪৮৬৪ ভোট পরাজিত হয়েছেন।

হারিশ রাউত: উত্তারাখন্ড এর পূর্ব মুখ্যমন্ত্রী ভারী ভোটের সাথে পরাজিত হয়েছেন। বিজেপি পার্থী অজয় ভাটের থেকে ৩ লক্ষ ৩৯ হাজার ভোটে পরাজিত হয়েছেন।

অশোক চৌহান: মহারাষ্টের পূর্ব মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রদেশ সভাপতি অশোক চৌহান নান্ডে থেকে নিজের আসন বাঁচাতে পারেনি। বিজেপির প্রতাপরা পাটিল ৪০ হাজার ভোটে হারিয়ে দিয়েছেন।

শীলা দীক্ষিত : দিল্লীতে ১৫ বছর মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকা এই দ্বিগজ নেত্রী এবার নিজের আসন রক্ষা করতে পারেনি। উত্তর পূর্ব দিল্লী   আসন থেকে ৩ লক্ষ ৬৬ হাজার ভোটে জয়লাভ করেছে বিজেপি পার্থী মনোজ তেওয়ারী।

দিগ্বিজয় সিং: ১০ বছর ধরে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন দিগ্বিজয়। কিন্তু এখন ভোপাল আসন থেকে সাধ্বী প্রজ্ঞার থেকে হার স্বীকার করতে হয়েছে কংগ্রেসের দ্বিগজ নেতা দিগ্বিজয় সিংকে।

সুশীল কুমার সিন্ধে:  মহারাষ্টের পূর্ব মুখ্যমন্ত্রী সুশীল কুমার নিজের আসন সোলাপুরকে বাঁচাতে পারেনি। বিজেপি পার্থী জয় সিদ্ধেসর ১ লক্ষ ৫৮ হাজার ভোটে হারিয়ে দিয়েছেন।

এছাড়াও নাবাম তুকি, মুকুল সাংমা, ভিরাপ্পা মৌলির মতো নেতারাও নিজের আসন বাঁচাতে পারেননি।

you're currently offline