Press "Enter" to skip to content

বড় খবর: শেষ হলো অপেক্ষা! রাম মন্দির নির্মাণের জন্য হস্তক্ষেপ করলো মোদী সরকার।

ইস্যুতে বড় খবর সামনে আসছে যা পুরো দেশকে রীতিমত কাঁপিয়ে তুলবে। খবর অনুযায়ী সরকার তৈরির জন্য আধিকারিক কাজ শুরু করে দিয়েছে। দেশের এর অবস্থান বিবেচনা করে সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আজ ২৯ তারিখ, আজকে ইস্যুতে সুপ্রিমকোর্টে শুনানির তারিখ ছিল। কিন্তু নানা টাল বাহানা করে সুপ্রিম কোর্টে আজকের ডেট বাতিল করে দিয়েছে। বিগত কিছুদিন ধরে সুপ্রিমকোর্ট ইস্যুতে নাটক জারি রেখেছে। মোদী সরকার সুপ্রিম কোর্টের এই নাটককে ধরে ফেলেছে এবং এবার এই ইস্যুতে হস্তক্ষেপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সুপ্রিম কোর্ট তারিখের পর তারিখ দিয়ে যায় এবং রামভক্তদের আস্থার উপর আঘাত হানে। বিজেপি সুপিম কোর্টের এই হিন্দু বিরোধী গেম প্ল্যানকে বুঝে নিয়ে কার্যবাহী শুরু করেছে। আসলে অযোধ্যার জমির উপর এখন শুধুমাত্র ভারত সরকারের অধিকার আছে। সরকার এই জমিকে অনেক আগেই অধিকৃত করে নিয়েছে। মোদী সরকার সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছে সরকার তার অধিকার প্ৰয়োগ করে অধিকৃত জমিকে আবন্ঠিত করতে চাই। এর জন্য NOC তথা নো অবজেকশন সার্টিফিকেট দিক।

এটা শুধুমাত্র একটা আনুষ্ঠানিক বিষয়, আদালত NOC প্রদান করতে অস্বীকার করতে পারবে না। কারণ এটা আদালতের সাংবিধানিক অধিকার। এখন পুরো বিষয়টি একটা সাংবিধানিক পক্রিয়া মাত্র, সরকার যদি চাই তাহলে NOC না নিয়েও জমিকে আবন্ঠিত করতে পারে এবং জমি নিজের ইচ্ছামত কাজে লাগাতে পারে। সরকার আবন্ঠিত জমি হিন্দু পক্ষকে প্রদান করবে এনিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। গতকাল সরকারের সাথে এই ইস্যুতে কথা বলেন এবং মন্দির নির্মাণের জন্য এই পথে কাজ শুরু করতে বলেন।

সরকারকে এই পথ বেছে নেওয়ার উপদেশ বিজেপি সাংসদ সুব্রামানিয়াম স্বামী বেশ কয়েকদিন আগেই দিয়েছিল। কিন্তু সরকার সুপ্রিম কোর্টের আসল উদ্দেশ্যে, হিন্দুদের প্রতি আচরণ পুরো জনগণের কাছে ফাঁস করে দেওয়ার পর এখন এই সিধান্ত নিয়েছে। এবার NOC পাওয়া মাত্র কয়েকদিনের মধ্যে রাম মন্দির নির্মাণ কাজ শুরু হবে।

9 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.