Press "Enter" to skip to content

ব্রেকিং খবরঃ তৃণমূলকে হটিয়ে কোচবিহারে ৪২ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের দখল নিলো বিজেপি

২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে কোচবিহারে যেখানে যেখানে প্রার্থী দিতে পেরেছিল বিজেপিতে সেখানেই চরম ভালো ফল করেছিল। কিন্তু সিংহভাগ আসনেই তৃণমূলের সন্ত্রাসের জন্য প্রার্থী না দিতে পারায় সবকটি আসনই তৃণমূলের দখলে চলে গেছিল। কোচবিহার জেলার ১২৮ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে মাত্র একটি পঞ্চায়েতে গেরুয়া ধ্বজ ওড়াতে সক্ষম হয়েছিল বিজেপি।

কিন্তু লোকসভা ভোটের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরেই কোচবিহার জেলার পরিসংখ্যান বদলে যায়। বিজেপির প্রার্থী কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রে বিপুল ভোটে জয়ী না হলেও, তৃণমূলকে যে ল্যাজে গোবরে করে দিয়েছিল সেটা বলাই বাহুল্য। কোচবিহার জেলার তৃণমূলের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে কড়া টক্কর দিয়ে বিজেপির প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক কোচবিহার লোকসভা আসন দখল করেছিল। আর তারপর থেকেই জেলায় তৃণমূলের ভাঙন শুরু হয়।

সোমবার তুফানগঞ্জ ২ নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সহ ৭ সদস্য বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর তুফানগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতি দখল করে বিজেপি। আর ২৪ ঘন্টা যেতে না যেতেই কোচবিহার থেকে আরও একটি খারাপ সংবাদ শাসক দল তৃণমূলের জন্য। মঙ্গলবার একদিকে যখন বনগাঁর বিধায়ক আর কাউন্সিলরেরা দিল্লীতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছিলেন। তখন আরেকদিকে কোচবিহারের মাথাভাঙ্গা ১ নাম্বার ব্লকের হাজরাহাট ১ নং অঞ্চলের প্রধান রূম্পা বর্মণ সহ ৭ জন পঞ্চায়েত সদস্য বিজেপিতে যোগদান করায় কার্যত তৃণমূলের হাত ছাড়া হল  এই গ্রাম পঞ্চায়েতটি।

১৩ আসন বিশিষ্ট এই গ্রাম পঞ্চায়েতে ১১ টি আসন ছিল শাসক দল তৃণমূলের দখলে। আর বাকি দুটি আসন বিজেপির হাতে। সাতজন পঞ্চায়েত সদস্য বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর বিজেপির সদস্য সংখ্যা হয়ে দাঁড়ালো ৯। সহজেই এই গ্রাম পঞ্চায়েতে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে গেলো বিজেপি। বিজেপির নেতৃত্বর দাবি অনুযায়ী,  কোচবিহারের ১২৮ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে এখন ৪২ টি গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির দখলে এসে গিয়েছে।

you're currently offline