Press "Enter" to skip to content

ব্রেকিং খবরঃ অর্জুন সিং এর হাত ধরে পুরসভা দখল করলো বিজেপি

লোকসভা ের পর রাজ্যে চরম হারে শক্তি বৃদ্ধি হয়েছে । ২০১৪ এর লোকসভা নির্বাচনে ২ টি আসন থেকে শুরু করে এর লোকসভা নির্বাচনে ১৮ টি আসন দখল করতে সক্ষম হয়েছে গেরুয়া শিবির। আর এবারের নির্বাচনে বিজেপির অপ্রত্যাশিত ফল দেখে পর শাসক দল তৃণমূলের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে। বিজেপির এই অভূতপূর্ব ফলের পর থেকে একে একে শাসক শিবির ছেড়ে নেতারা নাম লেখাচ্ছেন বিজেপিতে।

লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূলের বা বিধায়ক অর্জুন সিং নাম লেখান বিজেপিতে। আর ওনার বিজেপিতে যোগদানের পর থেকেই একে একে ওনার অনুগামীরা ভিড়ছেন বিজেপিতে। লোকসভা ভোটের আগে অর্জুন সিং দুর্গ বলে পরিচিত পুরসভার আট জন কাউন্সিলর যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে। এরপর অর্জুন সিং ওই পুরসভায় অনাস্থা প্রস্তাব আনলে, তৃণমূলের সামনে হার শিকার করতে হয় ওনার।

কিন্তু দিন কয়েক আগেই ওই পুরসভার ১১ জন কাউন্সিলর যোগ দেন বিজেপিতে। এরপর থেকে ওই পুরসভা দখলের জন্য উঠেপড়ে লাগে বিজেপির সাংসদ অর্জুন সিং। তৃণমূলও ওই পুরসভা নিজেদের ক্ষমতায় রাখতে যারপরনাই চেষ্টা চালিয়ে যায়। দফায় দফায় মিটিং, এমনকি তৃণমূল নেত্রী খোদ ওই এলাকায় পর্যন্ত যান। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হলনা।

৩৫ আসন বিশিষ্ট ভাটপাড়া পুরসভায় ৩৩ টি আসনই শাসক দল তৃণমূলের দখলে। ওই পুরসভার একজন কাউন্সিলরের মৃত্যু হয়েছে। অর্জুন সিং বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই ওই পুরসভায় ২২ জন কাউন্সিলর ওনার হাতে রয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু অনাস্থা ভোটে উনি ওনার সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে ব্যার্থ হয়েছিলেন। অনাস্থা ভোটে ২২/১১ সমর্থনে হেরে গেছিলেন অর্জুন সিং।

৩৪ আসন বিশিষ্ট এই পুরসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য ১৮ টি আসনের দরকার ছিল। আর আজ মঙ্গলবার ওই পুরসভায় ২৬ জন কাউন্সিলরের সমর্থন পেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করলো । তৃণমূলের হাত থেকে বেড়িয়ে গেলো । ওই পুরসভার চেয়ারম্যান হলেন, অর্জুন সিং এর ভাইপো সৌরভ সিং।

 

Comments are closed.