Press "Enter" to skip to content

মমতা হজ হাউস বানালে তুষ্টিকরণ, আর বিজেপি হজহাউস বানালে কি – উন্নতিকরন ?

তৃণমূল কংগ্রেস() সমাজবাদী পার্টি, কংগ্রেস মুসলিম তোষণ করে এই বিষয়টি এখন ভোটারদের কাছে জলের মতো স্বচ্ছ হয়ে গেছে। কিন্তু () বলে কি দ্বিচারিতা, ছদ্মধৰ্মনিরপেক্ষতা ইত্যাদি সবই চলবে আর বাকিরা করলে সেটার উপর প্ৰশ্ন উঠবে। তাহলে ভোটারদের উচিত নিজেরদের আত্মমন্থন করা উচিত। কারণ এক পক্ষের দোষ চোখে পড়ল আমরাও  দ্বিচারিতা, ছদ্মধৰ্মনিরপেক্ষতার শিকার। অখিলেশ যাদব, মমতা ব্যানার্জী মুসলিম তোষণ করে এ নিয়ে বহুবার অভিযোগ উঠেছে। অখিলেশ যাদব, মমতা ব্যানার্জী কোটি কোটি টাকা খরচা করে হজ হাউস তৈরী করেছিল এই অভিযোগে অনেকবার সরব হয়েছিল সাধারণ ভোটাররা।

হিন্দুদের ট্যাক্স নিয়ে মুসলিম তোষণের জন্য হজ হাউস তৈরিকে রাষ্ট্রবাদীরা প্রচন্ড বিরোধ করেছিল। তোষণের রাজনীতির বিরুদ্ধে বার বার সরব হয়েছিল রাষ্ট্রবাদী ও হিন্দুত্ববাদীরা। সমাজবাদী পার্টি, তৃণমূল সরকারের উপর বার বার মুসলিম তোষণের অভিযোগ তোলা হয়েছিল। আর এখন এমনই বিলাসবহুল হজ হাউস অন্য সরকার তৈরি করেছে। এই হজ হাউস তৈরি হয়েছে ঝাড়খন্ডে। যেখানে রঘুবর দাস নামের মুখ্যমন্ত্রী রয়েছে এবং সরকার বিজেপির।

ঝাড়খণ্ডের রাজধানী রাঁচিতে রঘুবর দাস কোটি কোটি টাকা খরচ করে বিলাসবহুল হজ হাউস বানিয়ে দিয়েছে। ৫ তলা হজ হাউস রাঁচিতে তৈরি করে দিয়েছে বিজেপির সরকার। বিলাসবহুল হজ হাউসে ১০০০ জন একসাথে নামাজ পড়তে পারে তারও ব্যাবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। সম্পূর্ণ AC দ্বারা পরিপূর্ণ, মর্ডান টয়লেট দ্বারা সাজিয়ে তোলা হয়েছে হজ হাউস। একটা ফাইভ স্টার হোটেলে যা যা থাকা উচিত সেই সবকিছুই আছে এই হজ হাউসে।

এখন প্রশ্ন এই যে, তৃণমূল বা সমাজবাদী পার্টির সরকার যে হজ হাউস তৈরি করেছিল সেটা নোংরা রাজনীতি আর বিজেপির দ্বারা তৈরী হজ হাউস বিকাশনীতি কিভাবে হয়? আর যদি আপনি এই ভেবে চুপ আছেন যে এটা বিজেপির সরকার, তাহলে আপনিও এক উচ্চমানের দ্বিচারিতা, ছদ্মধৰ্মনিরপেক্ষতা সম্পন্ন ব্যাক্তি।

Comments are closed.