Press "Enter" to skip to content

মহারাষ্ট্রের এই নির্বাচনে শিবসেনা ও কংগ্রেসকে হারিয়ে প্রচুর ভোটে জয়ী বিজেপি।

বিজেপি ও শিবসেনার মধ্যে অন্তরদ্বন্দ চরম সীমায় পৌঁছেছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, বিজেপি ও শিবসেনা দুটো দলই এনডিএ এর অন্তর্ভুক্ত এবং মহারাষ্ট্রে শিবসেনা ও বিজেপির জোটের সরকার রয়েছে। কিন্তু শিবসেনা বহুবার বিজেপির কাজের বিরোধিতা করে রাজনৈতিক লাভ উঠাতে চাইছে যা কোনোমতেই মানতে পারছেন না বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। বিজেপির চাণক্য নামে পরিচিত অমিত শাহ পরিষ্কার জানিয়েছেন যে শিবসেনা যদি এইভাবে চলতে থাকে তাহলে তাদের ভুগতে হবে। বিজেপি ও শিবসেনার এমন চরম অবস্থার মধ্যে মহারাষ্ট্র থেকে বিজেপির জন্য একটা ভালো খবর এসে পৌঁছেছে। আসলে মহারাষ্ট্রের নাগপুরে কাউন্সিল নির্বাচন হয়েছিল যার ফলাফল বেরিয়ে পড়েছে।

এই নির্বাচনের ফলাফলের সংখ্যা যা এসেছে তা সকলকে চমকে দিয়েছে। এই নির্বাচনে বিজেপি ও শিবসেনা আলাদা আলাদা ভাবে নেমেছিল। অন্যদিকে কংগ্রেস এনসিপির সাথে জোট করে তাদের প্রত্যাশীকে নির্বাচনে নামিয়েছিলো। এখানে বিজেপি তার সহযোগী শিবসেনাকে বড়ো ঝটকা দিয়ে ৩৮ সিটের মধ্যে পুরো ৩০ সিট দখল করেছে। কংগ্রেস ও এনসিপির জোট এই নির্বাচনে মাত্র ৩ টি সিট পেয়েছে। শিবসেনা ৩৮ সিটের মধ্যে ৪ টি আসনে জয় লাভ করেছে।

উল্লেখ, বনদগরির আসনে যে নির্বাচন হয়েচিল তাতে বিজেপি ১৯ টি আসনে জয় লাভ করেছে এখানে শিবসেনা ১ তাও আসন পাইনি। সেখানে কংগ্রেস ও এনসিপি ১-১ টি আসন পেয়েছে। বিজেপির জন্য এটা বড়ো জয় যে শিনসেনাকে ছাড়াই ৩৮ টি আসনের মধ্যে ৩০ টি আসন দখল করে ৭৯% আসনে জয়লাভ করেছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ মহারাষ্ট্রে বৈঠক ডেকেছিলেন এবং সেখানে উনি বিজেপি কর্মীদের মাঠে নেমে কাজ করার জন্য বলেন। অমিত শাহ বলেন যে এবার বিজেপি মহারাষ্ট্রে শিবসেনাকে ছাড়াই নির্বাচন লড়বে আর তার জন্য কর্মীরা প্রস্তুত থাকুন।

এখন নাগপুরের এই নির্বাচনের ফলাফল যে শিবসেনাকে বড় শিক্ষা দেবে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কারণ শিবসেনার ধারণা ছিল মহারাষ্ট্রে শিবসেনাকে ছাড়া বিজেপি এগোতে পারবে না। আর সেই সুযোগ নিয়েই শিবসেনা বিজেপির উপর নানা চাপ সৃষ্টি করতো । কিন্তু এবার অমিত শাহের পরিকল্পনা মতো মহারাষ্ট্রের বিজেপি একাহাতে নির্নাচন জিততে পারবে তার সংকেত দেশকে দিয়ে দিয়েছে।