Press "Enter" to skip to content

মহারাষ্ট্রে শিবসেনা ও কংগ্রেসকে হারিয়ে বিপুল ভোটে জয়ী হলো বিজেপি।

আবার বিজেপির জয় জয় কার। আবার একতরফা ভাবে সমস্ত বিরোধীদের হারিয়ে এগিয়ে গেল । সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করার ফল পেল । সাধারণ মানুষ যে এখন বিজেপিকেই চাই সেটা এবার প্রমান হয়ে গেল।
মহারাষ্ট্রের জলগাঁও এবং সাংলি পৌরসভার ভোট হয়েছিল সেই ভোটের গণনা ছিল আজ। গননার ফলাফলে শাসক দল বিজেপি বিরোধী দল গুলি কে অনেকটাই পিছনে ফেলে দিয়েছে। মহারাষ্ট্রের দুটি জেলা জলগাঁও জেলাতে এ ৭৫ সিট এবং সাংলি জেলায় ৭৮ সিট মোট ১৫৩ টি সিটের লড়াই চলছে। সেখানে মোট প্রাথি আছে ৭৫৪ জন। আজ সেই সমস্ত সিটের গননা হয়েছে।

মোট ৫৭% মানুষ সেই সমস্ত সিটে ভোট দিয়েছেন। এই নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে একজোটে লড়েছেন বিরোধী কংগ্রেস এবং এনসিপি। অপর দিকে বিজেপির একদা সাথি যারা আগে বিজেপির সাথে একযোগে লড়াই করত সেই শিবসেনাও এবার বিজেপির বিরুদ্ধে আলাদাভাবে লড়াই করেছেন। এখনো পর্যন্ত যে খবর পাওয়া গিয়েছে সেই খবর অনুযায়ী, সাংলি-মিরাজ- পৌরসভার নির্বাচনে যে ৭৮ টি সিটের লড়াই হয়েছিল তার মধ্যে শিবসেনা-০, এনসিপি-১৪, কংগ্রেস-১০ এবং বর্তমান শাসক দল বিজেপি সবথেকে বেশি ৩৭ টি সিটে এগিয়ে আছে।

উল্লেখিত যে বিজেপি এবার সবথেকে বেশি আসন দখল করেছেন সেই বিজেপি ২০১৩ সালের নির্বাচনে এখান থেকে একটাও আসন পায় নি। এবার বিজেপির এই বিরাট ব্যাবধানে এগিয়ে যাওয়া প্রমান করছে যে সাধারণ মানুষ বিজেপিকে কতটা ভরসা করছে। অন্য দিকে কংগ্রেস কে যে মানুষ আর চাই না এই ভোট তারই প্রমান কারন এবার কংগ্রেসের ভরাডুবি হয়ে হয়ে গেছে তার প্রমান আগের বার এই নির্বাচনে কংগ্রেস ৪১ টি আসন পেয়েছিল।

 

অপরদিকে ২০১৩ সালে জলগাওঁ পৌরসভাতে মাত্র ১৫ টি আসন দখল করা বিজেপি এবারের নির্বাচনে পেয়েছে ৭৫ এর মধ্যে ৫৭ টি আসন। আর আগের বারে ভালো ফল করা শিবসেনা এবার পেয়েছে ১৫ টি আসন। কিন্তু কংগ্রেসের পতন অব্যাহত এখানেও তাদের আসন সংখ্যা শূন্য এবং এনসিপি শুন্য।

মহারাষ্ট্রে ‘মারাঠা’ আন্দোলন বিজেপির ভোটে যে কোনো প্রভাব ফেলতে পারে নি সেটা একদম পরিষ্কার। তার কারন হল বিজেপির সাধারন মানুষের জন্য কাজ করা এবং বিজেপির উপর মানুষের ভরসা। সবথেকে বড় ব্যাপার এই যে শিবসেনার মতো পার্টি যার সাথে জোট করে মহারাষ্টে সরকার চলছে সেই পার্টিকেও হার মানিয়েছে।

#অগ্নিপুত্র