Press "Enter" to skip to content

দেশ রক্ষার জন্য কার্টোস্যাট -৩ স্যাটেলাইট লঞ্চ করবে ISRO, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ও এয়ার স্ট্রাইক করতে হবে সুবিধা।

চন্দ্রায়ণ -২ এর পরে এখন এর নতুন মিশন কার্টোস্যাট -৩ লঞ্চ করা হবে। যারপর এটি দেশের শত্রুদের ঘুম উড়তে চলেছে। কার্টোস্যাট -১ এবং ২ এর সহায়তায়, আমাদের সেনাবাহিনী পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক এবং বালাকোট এয়ার স্ট্রাইক চালিয়েছিল। যদিও, এই উপগ্রহের কাজ হবে মহাকাশ থেকে ভারতের ভূমি পর্যবেক্ষণ করা। একইসাথে বিপর্যয়গুলিতে আরও অবকাঠামোগত উন্নয়নে সহায়তা করা।  কিন্তু দেশের সীমানা পর্যবেক্ষণেও ব্যবহৃত হবে। এই মিশনটি পাকিস্তানের এবং এর সন্ত্রাসী শিবিরগুলিতে নজর রাখার জন্য দেশের সর্বাধিক শক্তিশালী নজরদারি হবে। এটি সীমানা নিরীক্ষণ করবে। যদি শত্রু বা সন্ত্রাসবাদীরা হয় তবে এই চোখের সাহায্যে আমাদের সেনাবাহিনী শত্রুদের ঘরে প্রবেশ করবে এবং তাদের দমন করতে সক্ষম হবে।

এই স্যাটেলাইটটির নাম – কার্টোস্যাট -৩ (কার্টোস্যাট -৩)। এটি কার্টোস্যাট সিরিজের নবম উপগ্রহ হবে। কার্টোস্যাট -৩ ক্যামেরাটি এতই শক্তিশালী যে এটি স্থান থেকে মাটিতে 1 ফুটের কম (9.84 ইঞ্চি) উচ্চতায় ছবি তুলতে সক্ষম হবে। অর্থাৎ, আপনি আপনার কব্জিতে বেঁধে রাখা ঘড়িতে দেখানো সঠিক সময় সম্পর্কে সঠিক তথ্যও দেবেন। কার্টোস্যাট উপগ্রহের সাহায্য নেওয়া হয়েছিল পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ও বিমান স্ট্রাইকের জন্য।

বিভিন্ন ধরণের আবহাওয়ায় পৃথিবীর ছবি তুলতে সক্ষম এই উপগ্রহ। প্রাকৃতিক দুর্যোগে সহায়তা করবে এবং মানুষের প্রাণরক্ষাকারী হিসেবে কাজে দেবে। দেশের সবচেয়ে শক্তিশালী নজরদারি উপগ্রহ, শক্তিশালী স্যাটেলাইট কার্টোস্যাট 3 উৎক্ষেপণ এখন এক মাসের মধ্যে বিলম্বিত হবে। এর প্রবর্তনটি এখন এক মাসের জন্য বিলম্বিত হতে পারে। ISRO অক্টোবরের শেষের দিকে দেশের সবচেয়ে শক্তিশালী নজরদারি স্যাটেলাইট কার্টোস্যাট -৩ লঞ্চ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রধান ডাঃ কে সিভান বলেছিলেন যে এ বছর চন্দ্রায়ণ -২ মিশনের পর তিনি আরও একটি বড় মিশন চালু করবেন। উনার এই বড় মিশনটি হলো কার্টোস্যাট -৩।