Press "Enter" to skip to content

মোদী ও স্বামীর যুগল মাস্টারস্ট্রোক! কয়েকদিনের মধ্যে শুরু হবে রাম মন্দির নির্মাণের কাজ।

লোকসভার নির্বাচন হতে মাত্র আর কয়েকদিনের বাকি এর মধ্যে হিন্দু বিরোধীদের বড় ঝটকা দিলো মোদী সরকার। রাম মন্দির ইস্যুতে যেভাবে আদালত তারিখের পর তারিখ দিয়ে যাচ্ছিল তাতে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল যে আদালতের বিচারের উপর রাজনৈতিক প্রভাব আছে। আদালতের উপর হিন্দু বিরোধী বামপন্থী ও কংগ্রেসের প্রভাব আছে এমনটাও মনে করেছিলেন বিজেপির কিছু বড় নেতা। আদালতের এই হিন্দুবিরোধী বিচারের দিকে লক্ষ করে দেশের মোদী সরকার এমন পদক্ষেপ নিয়েছে যা বিরোধিদের হুশ উড়িয়ে রামভক্তদের খুশি করেছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, খুব শীঘ্রই রাম মন্দির নির্মাণকাজ শুরু হতে চলেছে। মোদী সরকার এর জন্য।সাংবিধানিক কাজ শুরু করে দিয়েছে। সরকার আদালতের উপর ভরসা না করে রাম মন্দির ইস্যুতে হস্তক্ষেপ করেছে এবং আদালতের থেকে NOC চেয়েছে।

কিছুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেছিলেন, যদি আদালত মামলার সমাধান করতে না পারে তাহলে আমাদের দিক আমি ২৪ ঘন্টায় সমাধান করে দেব। অন্যদিকে দ্বিগজ নেতা সুব্রামানিয়াম স্বামী বলেছিলেন আদালতের উপর ভরসা না করেই সরকার আদালত মাত্র পস্তাব দিয়ে মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু করতে পারে। গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিজেপি সাংসদ সুব্রামানিয়াম স্বামীর সাথে দেখা করেন এবং আজ আদালতের কাছে সরকার জমির উপর NOC দেওয়ার দাবি জানিয়ে দিয়েছেন।

সরকার আগে থাকতে যে জমি অধিকৃত করেছিল সেই জমিকে অবন্ঠিত করে হিন্দু পক্ষকে দেওয়ার জন্য কাজ শুরু করেছে। মোদী সরকার সুব্রামানিয়াম স্বামীর বলা নীতি মেনেই এই পথ বেছে নিয়েছে। সরকার চাইলে আদালতের থেকে। NOC না নিয়েই জমি হিন্দু পক্ষকে প্রদান করতে পারে কিন্তু একটা সাংবিধানিক প্রক্রিয়া মেনে সরকার চলার সিধান্ত নিয়েছে।

লোকসভার আগে মোদী সরকারের এই পদক্ষেপকে মাস্টার্সস্ট্রোক বলা হচ্ছে। সরকার একবার NOC পেলে জমি হিন্দুপক্ষমকে প্রদান করবে এবং নির্মাণ কাজ শুরু হবে। এখন অপপাতত আধিকারিকভাবে মন্দির নির্মাণ শুরু হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, আদালত কোনোভাবেই NOC দিতে অস্বীকার করতে পারবে না কারণ এটা সরকারের সাংবিধানিক অধিকার।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.