Press "Enter" to skip to content

চীনের যে মিডিয়া একদিন মোদী সরকারের দুর্নাম করতো, তারাই আজ প্রধানমন্ত্রীর নিয়ে যা বলছে জানলে অবাক হবেন।

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী প্রচন্ড বহুমতের সাথে পদে বসেছিলেন। বিগত ৪ বছরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশের বিকাশের জন্য গরিবদের উন্নতি ও পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য অনেক বড়ো বড়ো পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। মোদী দেশের প্রগতির জন্য যেভাবে কাজ করছে তার সুনাম শুধু দেশের মিডিয়া নয়, বিদেশের মিডিয়াও করতে শুরু করেছে।

কিছু দেশের মিডিয়া তো প্রায় দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সুনামে মুখরিত হয় আর এর মধ্যে ের মিডিয়াও প্রধানমন্ত্রীর সুনামে লেগে পড়েছে। মোদী সরকার আসার পর যেভাবে দেশের আর্থিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে তার কারণ হিসেবে চীনের সরকারি সংবাদ মাধ্যম মোদী সরকারের ভালো ্তাভাবনাকে আছে বলে দাবি করেছে।

সংবাদপত্রে যে লেখা প্রকাশ হয়েছে তা অনুযায়ী, দেশের রাজ্যগুলিতে যেভাবে ি জয়লাভ করছে তা এটা বোঝায় যে নরেন্দ্র মোদী ে সবথেকে প্রভাবশালী নেতাদের মধ্যে রয়েছে আর বর্তমানে উনাকে টক্কর দেওয়ার মতো কেউ নেই। চীনের সরকারি সংবাদপত্র গ্লোবাল টাইমস এ ছাপানো লেখা ‘ন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট এন্ড রিফর্ম কমিশন’ এ লেখা হয়েছে যে ‘মোদী সরকারের ৪ বছর পূর্ণ হয়েছে এখনো সরকার দেশের বিকাশে ভালো কাজ করে চলেছে কিন্তু তা সত্ত্বেও ভারতে এই বিতর্কে চলেই আসছে যে মোদী বিরোধীদের তুলনায় দেশের জন্য ভালো কিনা। তবে এটা সত্যটা দেশের সামনে যে কে সবথেকে ভালো।’

২০১৯ এ হতে চলেছে আর এই সময় দেশের জনতা মোদী ও তার সরকারের কাজে রয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। যা দেশে আন্দাজ করা হচ্ছে যে দেশের জনতা কাকে চাইছেন। সংবাদপত্রের লেখা অনুযায়ী,’ দেশের ভবিষৎ ভারতীয়দের উপর রয়েছে। দেশে রাজনৈতিক অভিযোগ অনাভিযোগ চলতেই থাকবে কিন্তু যেটা সবথেকে বড় ইস্যু সেটা হলো আর্থিক ব্যাবস্থার উন্নতি। যেটা মোদী সরকার লাগাতার উন্নতি করেই চলেছে। মোদী সরকারের আনলে যেভাবে দেশের আর্থিক বিকাশ হয়েছে তা এখন বিশ্বের সামনে ফুটে উঠেছে।’

লেখায় বলা হয়েছে, এখনো কিছু লোকের মনে হয় যে GST এবং কোনো কাজে আসেনি। কিন্তু সত্য এটা যে GST ও নোটবন্ধির জন্যেই দেশের অর্থিল ব্যাবস্থা উন্নত হয়েছে। কোনোকিছু ক্ষতি হলে তা তৎক্ষনাৎ চোখে পড়ে কিন্তু দেশে ভালো কিছু পদক্ষেপ নিলে তার সুফল দেখা দিতে কিছুটা সময় লাগে যা এখন দেখা যাচ্ছে। নোটবন্দি ২ বছর সম্পূর্ন হয়েছে অন্যদিকে GST একবছর সম্পুর্ন হয়েছে যার ফলাফল এখন প্রদর্শিত হচ্ছে। IMF এর অনুযায়ী ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি বেড়ে ৭.৪ রয়েছে সেইজায়গায়২০১৯ এ তা ৭.৮ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।