Press "Enter" to skip to content

চিদম্বরমের গ্রেফতারির পর, বিজেপির সাথে সাথে এবার সুপ্রিম কোর্টকেও আক্রমণ করা শুরু করল কংগ্রেস!

সিবিআই প্রাক্তন অর্থ মন্ত্রী পি. চিদম্বরমকে গ্রেফতার করেছে কাল রাতে। এই ঘটনার পর কংগ্রেস মোদী সরকারের উপর আক্রমণের পর আক্রমণ করেই চলেছে। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, দেশে বদলার ভাবমূর্তি নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। দেশে গণতন্ত্রের হত্যা হচ্ছে। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, ‘বিজেপি সিবিআই আর ইডিকে বদলা নেওয়ার সংস্থা গড়ে তুলেছে। এটা গণতন্ত্রের হত্যা। দেশে অর্থব্যাবস্থার অবস্থা ভালোনা। আমরা দেখছি যে, বিজেপি সরকার এই ইস্যু গুলো থেকে মানুষের নজর হটানোর জন্য এহেন কাজ করছে।”

ইন্দ্রাণী মুখার্জীর প্রসঙ্গ তুলে কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, ৪০ বছর ধরে সার্বজনীন জীবন যাপন করা ব্যাক্তির উপরে নিজের মেয়ের হত্যাকারীর কথায় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘এফআইআরে চিদম্বরমের নাম ছিল না। এই মামলায় এখনো চার্জশিট দাখিল হয়নি। বিজেপি ভুলভাল তথ্য পেশ করছে মানুষের সামনে। ১২ বছর আগের মামলা নিয়ে এখন গ্রেফতারির কোন মানেই হয়না। বিজেপি পাঁচ বছর ধরেও প্রমাণ জড় করতে পারেনি।”

আরেকদিকে কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা তথা সুপ্রিম কোর্টের আইনজিবি কপিল সিব্বাল চিদম্বরমের গ্রেফতারি নিয়ে বলেন, ‘একজন আইনজীবী হিসেবে এটা আমদের কাছে খুবই চিন্তার বিষয়। দেশের নাগরিকদের জন্যও এটা অনেক চিন্তার বিষয়।” কপিল সিব্বাল নাম না নিয়ে সুপ্রিম কোর্টকেও আক্রমণ করেন। সিব্বাল বলেন, ‘আমরা শুধু চেয়েছিলাম এটা নিয়ে শুনানি হোক, কিন্তু ডিভিশন বেঞ্চের বিচারক শুনানির বদলে এই মামলার ফাইল প্রধান বিচারকের কাছে পাঠিয়ে দেয়। দেশের কোন নাগরিককে কি নিজের বক্তব্য পেশ করার অধিকার দেওয়া হবেনা?”

সিব্বল আরও বলেন, সুপ্রিম কোর্টের হেডবুক অনুযায়ী, সিজিআই সাংবিধানিক বেঞ্চে ব্যাস্ত থাকলে, অন্য বিচারকেরা মামলার শুনানি করবেন। কিন্তু আমাদের অধিকার দেওয়া হয়নি। রেজিস্টার জানায়, প্রধান বিচারক বিকেল ৪টে থেকে শুনানি করবেন। কিন্তু বিকেল চারটেয় শুনানির আর সময় থাকেনা।