Press "Enter" to skip to content

হিন্দুদের অপমানের পর এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অপমান করলো কংগ্রেস।

২০১৯ সামনে আসার সাথে সাথে কংগ্রেস তাদের হিন্দুবিরোধী নীতি নিয়ে এগোতে শুরু করে দিয়েছে। আসলে কংগ্রেস স্বাধীনতার পর থেকেই এক সম্প্রদায়ের তোষণের জন্য হিন্দুদের বলি বানিয়ে এসেছে। আর সামনে ২০১৯ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সেই নীতি শুরু করে দিয়েছে এবং হিন্দু সমাজকে যেনতেন প্রকারে অপমান করার কাজে লেগে পড়েছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি কংগ্রেস হিন্দুদের আতঙ্কবাদী তকমা দেওয়ার পর এবার ‘হিন্দু পাকিস্তান’ নামে নতুন শব্দের উত্থান করেছে।কংগ্রেসের বক্তব্য যদি ২০১৯ এ বিজেপি যেতে তাহলে সংখ্যাগুরু হিন্দুরা নাকি পাকিস্থানের মুসলিম জঙ্গিদের মতো আচরণ করবে।

কংগ্রেসের এই বক্তব্য রেখেছেন বরিষ্ট নেতা শশী থারুর।শুধু এই নয় এই বিষয়ে কংগ্রেসের আরেক হিন্দু বিরোধী বরিষ্ট নেতা দিগ্বিজয় সিং থেকে প্রশ্ন করা হলে তিনি এমন কথা বলেন যার উপর নতুন বিবাদ সৃষ্টি হয়। আসলে দিগ্বিজয় সিং বলেন পাকিস্থানের রাষ্ট্রপতি জিয়া হুল হক যেমন জামাত এ ইসলাম, তালিবানি ইসলামীকে সমর্থন করেছিলেন সেইভাবে হিন্দুউগ্রবাদ ও ভারতের জন্য ক্ষতিকারক। দিগ্বিজয় সিং কট্টরপন্থী জিহাদি জিয়া উল হককে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে তুলনা করেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে এইভাবে অপমান করা মানে দেশের একটা বড়ো পদকে অপমান করা তা ভুলেই এইরকম অপ্রীতিকর মন্তব্য করেন দিগ্বিজয় সিং।

প্রসঙ্গত অপনাদের জানিয়ে রাখি এই দিগ্বিজয় সিং মুম্বাই হামলার জন্য হিন্দুদের দায়ী করছিলেন। হিন্দুদের ভাগ্য ভালো ছিল যে এক পুলিশ অফিসার তার প্রাণ দিয়ে মুম্বাই হামলার এক জঙ্গিকে(বাকি জঙ্গিদের মেরে ফেলা হয়েছিল)জীবিত ধরতে পেরেছিলেন।নাহলে আজও কংগ্রেস মুম্বাই হামলার জন্য হিন্দুদের উপরেই দোষারোপ করতো।