Press "Enter" to skip to content

পার্টির হার সহ্য করতে পারলেন না কংগ্রেস নেতা! ভোট গণনা কেন্দ্রে হার্ট এট্যাক হয়ে হলো মৃত্যু।

ভোটগণনা কেন্দ্রের বাইরে ফল দেখার পর তিনি চেয়ারের উপর হটাৎ পরে যান, এবং তারপর তৎক্ষনাৎ তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যাবস্থা করা হয়, কিন্তু হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই তার  মৃত্যু ঘটে। এরকম বলা হচ্ছে যে তিনি কংগ্রেসর হারের দুঃখ সহ্য করতে না পেরে তার হার্টফেল হয়।
মধ্যপ্রদেশের সিহর জেলায় এক ভোটগণনা কেন্দ্রে সিহর জেলা কংগ্রেস রাষ্ট্রপতি রতন সিং ঠাকুর হার্টফেল করে মারা যান। তথ্য অনুযায়ী বলা হচ্ছে রতন সিং ঠাকুর মতগণনা কেন্দ্রে ভোটের গণনা দেখতে গেছিলেন কিন্তু হঠাৎ তিনি জ্ঞান হারিয়ে পরে যান। সেখানে অবস্তিত থাকা লোকেরা জানান, বন্ধুদের সাথে আসা রতন সিং ঠাকুর ভোটের পরিনাম দেখে অজ্ঞান হয়ে চেয়ারে পরে যান। বলা হচ্ছে যে তাকে তৎকালীন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যাবস্থা করা হয়েছিল কিন্তু হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই তার মৃত্যু ঘটে।এরকম বলা হচ্ছে যে তিনি কংগ্রেসের হারের দুঃখ সহ্য করতে না পেরে তার হার্টফেল হয়।

দেশ জুড়ে লোকসভা নির্বাচনের গণনা চলছিল। প্রবণতা এরকম দেখা যাচ্ছিল যে বিজেপি ৩০০-র বেশি পরিসংখ্যা পার করতে দেখা যাচ্ছে। মধ্যপ্রদেশেও বিজেপির বড় সাফল্যের অগ্রসর হচ্ছিল। এখানে লোকসভার ২৯ টি সিটের মধ্যে BJP ২৮ টি সিটে আগে চলছিল, যেখানে কংগ্রেস একটিতে লিড পেতে দেখা যাচ্ছিল। সেই সময় ভোপাল থেকে ভাজপার সাধভি প্রগা সিং কংগ্রেসের দিগবিজয় সিং এর থেকে ৬৯ হাজারের বেশি মত দ্বারা এগিয়ে ছিল।

অন্যদিকে গুনা লোকসভায় সিটে কংগ্রেসের জ্যোতিরাডিত্য সিন্ধিয়া BJP এর ক্যাপি যাদাভ এর থেকে ৫০ হাজারের বেশি ভোট দ্বারা পিছিয়ে ছিল। লক্ষ করার বিষয় হল, সাল ২০১৪-তে লোকসভা নির্বাচনে মধ্যেপ্রদেশে ভাজপা খুব বড় বাজি মেরেছিলো। এখানে ২৯ টি  লোকসভা সিটের মধ্যে ২৭ টি সিট ভাজপা কবজা করেছিল, যেখানে কংগ্রেস মাত্র দুইটি সিট জিততে পেরেছিল। কিন্তু এবার কংগ্রেসের দুইটি সিটও ভাজপার কাছে চলে যেতে দেখা যাচ্ছে।

you're currently offline