Press "Enter" to skip to content

মোদী সরকারের নামে মিথ্যা বদনাম করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়লেন কংগ্রেসের বরিষ্ঠ নেতা।

২০১৪ সালে নির্বাচনে দেশের বিপুল সংখ্যক মানুষের সমর্থন পেয়ে দেশের প্রধানমন্ত্রী আসনে বসেন মাননীয় শ্রীযুক্ত নরেন্দ্রমোদী মহাশয়। তারপর থেকেই তিনি সাধারণ মানুষের ভালো জন্য কংগ্রেসের সমস্ত দুর্নিতিমূলক কাজকর্ম দেশের মানুষ কে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়েছেন। তার ফলে ক্রমশ ভারতীয় রাজনীতি থেকে কংগ্রেস মুছে যেতে থাকে। সেই জন্যই কংগ্রেস মোদী সরকারের বদনাম করার জন্য উঠে পড়ে লাগে। তার জন্য তারা বিরোধীতা করতে গিয়ে শেষে মিথ্যার আশ্রয় নিতে শুরু করেছে। আপনারা জানলে অবাক হয়ে পরবেন যে কংগ্রেসের ছোটো খাটো নেতারা তো বটেই সেই সাথে কংগ্রেসের বরিষ্ট নেতারাও মিথ্যাচরণ করছেন ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছেন যাতে তারা মোদীজির গায়ে কালি লাগাতে পারেন। শুধুমাত্র মোদী সরকারের একটু বদনাম করার জন্য তারা কতটা নিচে নামতে পারে জানলে আপনিও অবাক হবেন।

যিনি কংগেসের বরিষ্ট নেতা যিনি হিন্দু বিরোধী নামেও পরিচিত তিনি সবার কাছে একদম হাতে নাতে ধরা পরে গেলেন মোদী সরকারের নামে মিথ্যাচার করে ভুয়ো খবর ছড়াতে গিয়ে। নামে এই কংগ্রেস নেতা কিছু দিন আগে একটা ছবি শেয়ার করেন সেটি ছিল একটি ক্র্যাক হওয়া ব্রিজের ছবি। তিনি দাবি করেন যে এই ব্রিজটি বিজেপি সরকারের আমলে করা হয়েছে মধ্যেপ্রদেশের ভোপালে। তিনি সেই ব্রিজটির ক্রাক হওয়া জায়গাটি চিহ্নিত করে বিজেপি সরকারের কাজের সমালোচনা করেন।

তার ঠিক পরেই এই ছবিটি ভাইরাল হয় এবং দেশের সাধারণ মানুষ মোদী সরকারের দিকে আঙুল তুলতে শুরু করে। অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করে দেয় মোদী সরকারের কাজের সচেতনতা নিয়ে। কিন্তু পরে জানা যায় যে সেই ছবিটি যেটা কংগ্রেসের হিন্দু বিরোধী নেতা দিগ্বিজয় সিং প্রকাশ করেন সেটা ভূপাল এর ছবি নয় এমনকি ওই ছবিটি আমাদের দেশের নয়। ওটা দেশের বাইরের ছবি। আসলে ওই ছবিটি ছিল পাকিস্থানের একটি মেট্রো ওভারব্রিজের ছবি। যেটার কাজ পাকিস্তান সরকার এখন শেষ করে নি। এমন কি দিগ্বিজয় সিং এর সেই কাজের প্রতিবাদ করে সমালোচনা করেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীও।

হাতে নাতে ধরা পড়ার পরেও দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাননি দিগ্বিজয় সিং। আপনাদের জানিয়ে রাখি এই দিগ্বিজয় সিং সেই নেতা যিনি কিছু মাস আগে ইনি কোটি কোটি বিজেপি কর্মকর্তাদের অসম্মান করেছিলেন ‘চুতিয়া’ বলে সম্বোধন করে। শুধু এই নয় দিগ্বিজয় সিং ২৬/১১ মুম্বাই হামলার জন্য হিন্দুদের দায়ী করেছিলেন এবং হিন্দুদের আতঙ্কবাদী বলেছিলেন। যদিও এই হামলার মূল দায়ী ছিল পাকিস্থান যা তারা নিজেরাই স্বীকার করেছিল।

#অগ্নিপুত্র