লাইভ ডিবেটের সময় কংগ্রেস নেতা হটাৎ রেগে যায়, আর তারপর উঠে সম্ভীত পাত্রের ওপর ..

বিজেপি হয়ে সমস্ত তর্ক-বিতর্কে অংশ নেন বিজেপির রাষ্ট্রীয় প্রবক্তা সম্ভীত পাত্র। এনার একটি খুব সুন্দর গুন আছে। ইনি খুব সুন্দর করে গুছিয়ে কথা বলতে পারেন, কাউকে অসম্মান না করেই ইনি বিজেপির সমস্ত ভালো গুন গুলি দেশের জনসাধারনের কাছে তুলে ধরেন। এনার এইভাবে কথা বলার ভঙ্গি দেখে অনেকেই অবাক হয়ে যান। এমনকি অনেক সময় এটাও হয়েছে যে, বিরোধীরা এনার বিপক্ষে বিতর্কে অংশ নিয়ে এনার কথার মুগ্ধতায় হারিয়ে গেছে। এর ফলে এনার এই সুন্দর কথা বলার ধরন দেখে এখন পুরো দেশে উনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। উনার জনপ্রিয়তা এই মুহূর্তে একদম উচ্চ শিকরে পৌঁছেছে। আপনারাও অনেকে হয়তো সম্ভীতজির ভক্ত আছেন আমাদের সাথে যারা এই মুহূর্তে আমাদের খবর পড়ছেন।

আগামী বছর দেশজুড়ে হতে চলেছে লোকসভা নির্বাচন। তার আগে দেশের আরও ৫ টি গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। সেই নিয়ে এই মুহুত্তে দেশজুড়ে চলছে চরম প্রস্তুতি। এই সময়ে নিউজ চ্যানেল ‘AAJ TAK’ একটি বিতর্ক সভার আয়োজন করে মুম্বাইে। যেখানে উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেসের মুখপাত্র সঞ্জয় নিরূপুম, সমাজবাদী পার্টির তরফে আবু আসিম আজমি এবং সম্বিত পাত্র জি।

আপনাদের সুবিধার জন্য জানিয়ে রাখি যে, এই বিতর্কের জন্য বিষয় ছিল ‘ ভেঙ্গে ফেলো ও শাসন করো।” কিছু সময় পরে একটু কথা কাটাকাটি শুরু হয়ে যায় সম্ভীত পাত্র এবং কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরূপুপ এর মধ্যে এই বিতর্ক নিয়ে। এই ঘটনার শুরু হয় কংগ্রেসের মুখপাত্র সঞ্জয় নিরূপুপ ও সমাজবাদী পার্টির আবু আসিম আজমির একসাথে জোট হয়ে ফালতু কথা বলার জন্য। আবু আসিম কটাক্ষের শুরে সম্ভীত জিকে বলেন যে বিজেপি কে লোকসভা ভোটে উত্তরপ্রদেশে ২ টির বেশি সিট নিতে দেবেন না। সম্ভীত জিও ছাড়বার পাত্র নয় তাই উনিও রাহুল গান্ধীর কথা তুলে কটাক্ষ করে বলেন যে আপনারাতো এটাও বলেছিলেন যে এমন মেশিন আবিষ্কার করবো যেটাই একদিকে আলু ভরলে অন্যদিকে সোনা বের হবে, কিন্তু পারেন নি তাই এখন আপনাদের কথায় দেশের জনগণ হাসেন। এই কথা শোনার পর সেখানে উপস্থিত দর্শক খুব হাসাহাসি শুরু করে দেয়। ব্যাস এই দৃশ্য দেখার পরই খুব রেগে যায় কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরূপুম এবং তিনি রাগান্বিত অবস্থায় সম্ভীত জীর সামনে এসে দাঁড়িয়ে যায়। সেই সময় তাকে দেখে এমন মনে হচ্ছিল যেন তিনি হয়তো মেরেই ফেলবেন সম্ভীতজিকে !

এইভাবে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ার পর যখন কংগ্রেস নেতা দাঁড়িয়ে পড়েন  সেই সময় সম্ভীত জিও দাঁড়িয়ে পরেন এবং বলেন যে মারুন আমাকে মারুন, আমি দেখি আপনার সাহস কত? আমি মৃত্যুকে ভয় পাই না দেশের জন্য কাজ করতে এসেছি তাই আমাকে মরার ভয় দেখাবেন না।

সেই সময় কংগ্রেস নেতা নিরুপম খুবই বাজে ভাষা ব্যাবহার করছিল। সেই উদ্দেশ্যে সম্ভীত জি বলেন যে, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীতো খুব জন দরদী কথা বলেন কিন্তু তার দলের নেতাই প্রমান করে দিচ্ছেন যে কংগ্রেস দলের আসল চরিত্র। এই ঘটনার পর রাজনৈতিক মহল মনে করছেন যে, এই ঘটনায় কংগ্রেস নেতা নিরুপম শুধু নিজেরই বদনাম করলেন না সেই সাথে পুরো কংগ্রেস দলের সম্মান মাটিতে মিশিয়ে দিলেন। নীচে ভিডিও
#অগ্নিপুত্র

you're currently offline

Open

Close