Press "Enter" to skip to content

কংগ্রেসি বললেন ডালের দাম ১৭০ টাকা/কেজি।সাংবাদিক বললেন কোন ডালের এমন দাম? উত্তরে যা এলো…

সভাপতি রাহুল গান্ধী নিজের মন্তব্য ও ভাষণের জন্য প্রায়ই সংবাদের শিরোনামে থাকেন। রাহুল গান্ধী তার ভাষণে এমন এমন কিছু বলে ফেলেন যার জন্য উনি সাধারণ মানুষের নিশানায় চলে আসেন এবং পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার হন। উনি ছাড়াও উনার পার্টিতে এমন কিছু নেতা রয়েছেন যারা বিতর্কিত বক্তব্যের জন্য কুখ্যাতি অর্জন করেছেন। এই নেতানেত্রীরা আমিন এমন কিছু বলে দেন যাতে পুরো দলকে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। জানিয়ে দি এখন রাফেল চুক্তি নিয়ে মোদী সরকারের উপর আক্রমণ করতে শুরু করেছিল। কিন্তু রাহুল গান্ধী নিজেই বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন দাম বলেছিলেন যার ফলস্বরূপ এটা প্রমাণিত হয় যে ের নেতারা নিজেরাই দাম ঠিকমতো জানে না অথচ তারা বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলন করে জনতাকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। এই ঘটনা নিতে উত্তালপাতাল বন্ধ হতে না হতেই আরো এক নেত্রী এমন কিছু বলেছেন যে আপনিও অবাক হবেন।

সম্প্রতি ১০ সেপ্টেম্বর কংগ্রেস পেট্রোল ও ডিজেলের দাম নিয়ে আন্দোলন করে ক্ষোপ প্রদর্শন করেছিল। কংগ্রেস নেত্রী কুমারি শাইলাজা নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন যা শোনার পর আপনিও বলবেন এই ধরণের নেতা একমাত্র কংগ্রেস দলেই থাকে। এই নেত্রী প্রেস কনফারেন্স করে বলেছেন দলের দম এখন ১৭০ টাকা কেজি পৌঁছে গেছে। উনার এই বক্তব্য শুনে পাশে দাঁড়ানো বাকি কংগ্রেস নেতাদের হুশ উড়ে যায়।

এর বক্তব্যের পর বাকি কংগ্রেস নেতারা ভাবতে শুরু করেন যে নেত্রী কোন ের কথা বলছেন যার দাম ১৭০ টাকা কেজি। তাহলে কি নতুন কোনো ের চাষ হচ্ছে যা কারোর জমা নেই। এরপর এক মিডিয়া কর্মী উনাকে জিজ্ঞাসা করেন যে কোন ১৭০ টাকা কেজি? প্রশ্ন শুনে কংগ্রেস নেত্রী ভাবতে শুরু করে দেন।

এরপর লোকজন উনাকে বলেন যে আপনি জনতাকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। জানিয়ে দি এখন অড়হরের ডাল ৭৫ টাকা কিলো, মুগ ডাল ৮০-১০০ টাকা কিলো, মুসরের ডাল ৬০-৮০ টাকা কিলো, চানা ডাল ৮০ টাকা কিলো। এই ডালগুলিকেই মানুষ দৈনিক জীবনে ভোজন হিসেবে গ্রহণ করে। কিন্তু শাইলাজা ডালের দাম ১৭০ টাকা কেজি বলে রাহুল গান্ধীর মতোই নিজের পায়ে নিজেই কুড়ুল মারেন।