Press "Enter" to skip to content

যারা এয়ার স্ট্রাইককে সমর্থন করছে, তাঁদের মোদীর পিছনে ঢুকিয়ে দেওয়া উচিৎঃ কংগ্রেসের বিধায়ক

ভারতের কিছু এমন রাজ্য আছে, যেখানে বিধানসভার সাথে সাথে ও আছে। বিধানসভার সদস্যকে বিধায়ক বলা হয়, আর ের সদস্যকে । আর এদের দুজনকের বিধায়ক বলা হয়। যেরকম রাজ্য সভা আর লোকসভার সদস্যকে সাংসদ বলা হয়।

সেই রাজ্য গুলোর মধ্যে একটা হল , ে বিধায়কদের সাথে সাথে এমএলসি ও আছে। আর ের এক ের এমএলসি নরেন্দ্র মোদীর বিরোধিতায় নিজের যোগ্যতার পরিচয় দিলেন। দেশে লোকসভা নির্বাচনের ঘোষণা হয়ে গেছে। আর সেই নিয়ে এখন সব দলই রাজনীতিতে মত্ত। আর ের রাজনীতি এখন দেখার মত হতে চলেছে।

বিরোধীরা আর স্যার্জিক্যাল স্ট্রাইককে ভুয়ো বলে পরিচয় দেয়। এরা ের সমর্থনে নেমে পড়েছে, এবার এরা দেশের জনগণদের ও গালি দেওয়া শুরু করেছে। ের জঙ্গি সংগঠন করাল। আর ভারত সরকারের সহমতিতে ভারতীয় বায়ুসেনা পাকিস্তানের মাটিতে ঢুকে তাঁর বদলা নিলো। সেনার এই বীরত্বের জন্য দেশের মানুষ সেনাকে চরম অভিনন্দন জানিয়েছে।

আর তারপরেই কংগ্রেসের নেতারা বেজায় চটে গেছে। এমন চটেছে যে, এবার তাঁরা মোদীর সাথে সাথে দেশের জনগণ কেও গালি দেওয়া শুরু করেছে। কংগ্রেসে এমএলসি মহারাষ্ট্রে একটি সভায় মোদী বিরোধিতা শুরু করে। যদিও সেটা অস্বাভাবিক কিছুই না, কারণ উনি সাংবিধানিক মতে দেশের প্রধানমন্ত্রীর বিরোধিতা করতেই পারেন।

কিন্তু সমস্যাটা হল তখন, যখন কংগ্রেসের এই নেতা মোদী বিরোধিতা করতে করতে বলেন, ‘এয়ার স্ট্রাইকে একটা পিঁপড়েও মরেনি। আর কিছু মানুষ মোদী-মোদী করছে। এদের সবাইকে মোদীর পিছনে ঢুকিয়ে দেওয়া উচিৎ।”

দেশের সবাই মোদীজির সমর্থন করছে, আর কংগ্রেস সেটা সহ্য না করতে পেরে গালাগালি দিচ্ছে। ইনি শুধু মোদীর বিরোধিতা করে দেশের জনতাকে গালি দেয়নি, বরঞ্চ ইনি পাকিস্তানকে খুশি করে এয়ার স্ট্রাইককে ভুয়ো বলে প্রচার করছেন!

9 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.