Press "Enter" to skip to content

রাজস্থানে পুরো দমে লুট শুরু করলো কংগ্রেস! কৃষিঋণ মুকুবের নামে ১০ কোটি টাকা আত্মসাৎ।

দুর্নীতি বা ঘোটালা করার জন্য শুধুমাত্র নেতাদের উপর পুরোপুরি দোষ চাপিয়ে দেওয়া উচিত নয়। কারণ সমস্থ ক্ষেত্রে এই দোষের ভাগিদারী দেশের জনগণ হয়। পার্টি ভারতে কোনো নতুন পার্টি নয়, পার্টির ট্রাক রেকর্ড মানুষ বেশ ভালোভাবেই জানে। মিথ্যাবাদী,অহংকারী, লোভী ের চরিত্র ের মুখ্য বৈশিষ্ট্য এটা দেশের জনগণ ভালোভাবেই জানে। তা সত্ত্বেও বার বার নিজের স্বার্থের খাতিরে ের ফাঁদা লোভের জালে পড়ে যায়।

রাজস্থানের জনগন বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে সরিয়ে ‘পাকিস্থান জিন্দাবাদ’ বলা কংগ্রেস পার্টিকে এনেছে। আর কৃষিঋণ মুকুবের নামে রোজ রোজ দুর্নীতি সামনে আসছে। কৃষিমুকুবের ট্রাম এন্ড কন্ডিশন এমন রাখা হয়েছে যে লিস্ট থেকে ৯২% কৃষক বেরিয়ে গেছে। মাত্র ৮% কৃষক এর ঋণ মুকুব হবে, সেটাও কিভাবে হবে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। এবার রাজস্থানে যুবকদের কেমন কর্মসংস্থান হবে সেটাও কয়েক দিনের মধ্যেও বোঝা যাবে।

রাজস্থানের পরিস্থিতি এমন যে প্রত্যেক জেলা থেকে ১ করে টাকা আত্মসাৎ এর বড় ঘটনা সামনে আসছে। শুধুমাত্র আলবার নামক এক স্থানে ১০ কোটির বেশি টাকা আত্মসাৎ হয়েছে। টাকা আত্মসাৎ এতটাই জোশের মধ্যে করছে যে, মনে হচ্ছে যেন টাকা লুটে নেওয়া নিয়ে কোনো ভয় পর্যন্ত নেই। খোলাখুলি এই টাকা আত্মসাৎ এর জন্য দু একটা ঘটনা ধরাও পড়ে যাচ্ছে।

রাজস্থানের জনগণ কৃষিঋণ মুকুবের জন্য কংগ্রেসকে ভোট দিয়েছিল কিন্তু এখন ঋণ মুকুবের নামে রাজ্যের অর্থভান্ডার লুটবার কাজ দ্রুতগতিতে শুরু হয়েছে। অবশ্য জনগণকে এখন এই সব সইতেও হবে। এখন তো সবে শুরু, সামনে পুরো ৫ বছর বাকি আছে।

6 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.