Press "Enter" to skip to content

ভারতে ইসলামিক কানুন প্রয়াগ করে শরিয়া আদালত তৈরিতে উৎসাহী কংগ্রেস।

ভারতবর্ষ ইসলামিক দেশে পরিণত হোক বা দেশের সংবিধানের অবমাননা হোক, কোনো কিছুতেই যায় আসে না দেশের সবথেকে পুরানো রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের। আসলে ভারতের সবথেকে বড় মুসলিম সংগঠন অল ইন্ডিয়া ভারতের প্রত্যেক জেলায় দার উল কাজ বা শরিয়া আলদালত তৈরির কথা ঘোষণা করেছে। এই বিষয়ে আলোচনার জন্য ১৫ তারিখ সভার আয়োজনও করা হয়েছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি এই শারিয়া আদালত তৈরি করে মুসলিমদের সমস্যা নিজেদের এই আদালতে মেটানোর জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কিন্তু ইসলামিক কানুন দেশের মুসলিম মহিলাদের সাথে সাথে দেশের অখণ্ডতা বজায় রাখার জন্যেও বিপদজনক। কারণ আজ মুসলিম পার্সোনাল ল মুসলিমদের জন্য আলাদা আইন চাইছে পরে জনসংখ্যার জোর প্রয়োগ করে আলাদা দেশ চেয়েও বসতে পারে। আর দেশের সবথেকে পুরানো রাজনৈতিক দল কংগ্রেস, মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের এই সিধান্তকে সমর্থন করেছে। কংগ্রেস এর নেতা জামির আহমেদ বলেন শারিয়া আদালত হলে মুসলিমদের পারিবারিক সমস্যা মেটাতে সুবিধা হবে। আসলে এইসব নেতাদের উদেশ্য ভারতের সংবিধানের আইনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে মুসলিম মহিলাদের তালাক ও হালালার মতো নিয়মকে চালু রাখা যা বন্ধ করার চেষ্টায় লেগে পড়েছে কেন্দ্রের মোদী সরকার।

অভিনেত্রী কোয়েনা মিত্র রাহুল গান্ধীর এই সমর্থনের তীব্র নিন্দা করেন এবং বলেন যে এতে আশ্চর্যের কিছু নেই যে শারিয়া আদালতকে সমর্থন করছে। কোয়েনা তার বক্তব্যের মাধ্যমে বুঝিয়ে দেন যে রাহুল গান্ধীর দল মুসলিম সম্প্রদায়ের তোষণের জন্য অনেক নিচে নামতে পারে এমনকি ক্ষমতার লোভে দেশকে ইসলামিক রিপাব্লিক অফ ইন্ডিয়া বানাতেও রাজি কংগ্রেস।