Press "Enter" to skip to content

বিজেপি ও RSS এর বিচারধারার সাথে লড়াই করার জন্য, কয়েকশ কোটি খরচ করে ট্রেনিং স্কুল বানালো সিপিএম

প্রতিটি নির্বাচনে আসতে আসতে গুঁটিয়ে যাওয়া সিপিএম () এবার নিজেদের ক্যাডার তৈরি করার জন্য, দলের কর্মীদের ট্রেনিং দেওয়ার জন্য আর আরএসএস বিজেপির বিচারধারার সাথে লড়াই করার জন্য বিলাসবহুল ট্রেনিং স্কুলের উদ্বোধন করল। এই স্কুলের নাম হরকিশন সিং সুরজিত ভবন দেওয়া হয়েছে।

মার্ক্সবাদী নেতা হরিকিশন সিং সুরজিত (Harkishan singh Surjeet) নামে হওয়া এই বিশাল ভবনকে একটি পার্তি অফিসের মতো ব্যাবহার করা হবে। সিপিএম এর মহাসচিব সীতারাম ইয়েচুরি () বলেন, আরএসএস-বিজেপির সাথে টক্কর নেওয়ার জন্য আর বামেদের বিচারধারা চারিদিকে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য এই স্কুল অনেক সাহায্য করবে।

Harkishan singh Surjeet

সিপিএমএর ট্রেনিং স্কুলটিকে বাইরে থেকে কোন দলের দফতরের মতো লাগে। ১৮৪০ বর্গ মিটারে তৈরি হওয়া এই সুবিশাল বিলাসবহুল ভবনের ভিতরে একটি বড় কনফারেন্স হল ছাড়াও ২০০ মানুষের থাকা খাওয়ার ব্যাবস্থা করা হয়েছে। সিপিএম পলিট ব্যুরো সদস্য আর প্রাক্তন মহাসচিব প্রকাশ কারাট বলেন, ভবনে ব্যবহৃত ট্রেনিং স্কুল ছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ধর্মনিরপেক্ষ বিচারধারার প্রসার করা হবে।

সিপিএম এর সমস্ত নেতাদের অনুযায়ী, দেশে বর্তমান পরিস্থিতি যা, সেগুলোর সাথে লড়াই করার জন্য একমাত্র বাম বিচারধারা বৈকল্পিক রাস্তা। আর সেই বিচারধারার প্রসারের জন্য হরিকিশন সিং সুরজিত ভবনকে ট্রেনিং স্কুলের মতো ব্যাবহার করা হবে।

এই স্কুলের সঙ্কল্পনা সিপিএমএর প্রাক্তন মহাসচিব তথা বরিষ্ঠ মার্ক্সবাদী নেতা হরকিশন সিং সুরজিত নিয়েছিলেন। ২০০৫ সালে কেন্দ্র সরকার থেকে জমি পাওয়ার পর ২০০৯ সালে সিপিএম ভবনের কাজ শুরু হয়। আর ১০ বছরে এই ভবন সম্পূর্ণ প্রস্তুত হয়ে যায়। বিজেপির প্রধান অফিস আর কংগ্রেসের নির্মাণাধীন প্রধান কার্যালয়ের থেকে সিপিএম এর এই বিলাসবহুল ভবন মাত্র কয়েক মিনিটের দুরুত্বেই আছে। কংগ্রেসের প্রধান কার্যালয়ের উদ্বোধন আগামী ২৮ ডিসেম্বর দলের স্থাপনা দিবসে করা হবে।