Press "Enter" to skip to content

প্রতিমাসে দাম কমেছে পেট্রোল ডিজেলের! এক মাসে প্রতি লিটারে দাম কমলো ৭.২৯ টাকা

বড় খবর : এক মাসে ে প্রতি লিটারে দাম কমলো ৭.২৯ টাকা

দেশজুড়ে তেলের দাম বৃদ্ধি নিয়ে চারিদিকে খুব তোড়জোড় পরে গিয়েছিল। রাজনৈতিক মহলে এই নিয়ে বেশ হৈচৈ শুরু হয়ে গিয়েছিল। দেশের সমস্ত বিরোধী দলগুলি ও মিডিয়া এই নিয়ে মোদী সরকার কে আক্রমণ করতে ছাড়েন নি। কিন্তু এবার মোদী সরকার দেশের বিরোধী দল গুলিকে দিলেন উপযুক্ত জবাব। সাধারণ মানুষের কথা ভেবে তেলের দাম অনেক কমিয়ে দিল কেন্দ্র সরকার। আসলে বিগত সপ্তাহ ধরে লাগাতার দাম কমেছে পেট্রোল ও ডিজেলের। তবে এখন মিডিয়া এই নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি নয়। মনে করিয়ে দি এটা সেই মিডিয়া যারা তেলের মূল্য ১ পয়সা বৃদ্ধির সময় পেট্রোলপাম্পে বসে সাধারণ মানুষকে সরকারের বিরুদ্ধে উস্কানি দিচ্ছিল।

এবার মোদী সরকার তেলের দাম কমাল পরপর ২৯ দিন। গত একমাস ধরে প্রত্যেক দিন কমেছে তেলের দাম। কমতে কমতে একমসে টোটাল ৭ টাকা ২৯ পয়সা কমেছে পেট্রোলের দাম এবং ডিজেলের দাম কমেছে ৩ টাকা ৮৯ পয়সা। এর ফলে দেশের সাধারণ মানুষ এই মুহুত্তে কিছুটা স্বস্তিতে রয়েছেন।

আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বেড়ে যাবার জন্য গত ১৬ ই অগাস্ট থেকে অক্টোবরের ৪ তারিখ পর্যন্ত পেট্রোলের দাম প্রতি লিটারে ৬.৮৬ টাকা বেড়ে গিয়েছিল। ৬.৭৩ টাকা বৃদ্ধি পায় ডিজেলের দাম। এবার আন্তর্জাতিক বাজারে কিছুটা কম হচ্ছে পেট্রোলের দাম। তাই পেট্রোলের দাম কম হচ্ছে। কিন্তু পেট্রোলের দাম কমলেও ডিজেলের দাম দ্রুত একই হারে কম হচ্ছে না। কারন আন্তর্জাতিক বাজারে ডিজেলের দামের কোনো হ্রাস হয় নি।

আজ অর্থাৎ রবিবার কলকাতা শহরে পেট্রোলের দাম লিটার পিছু ৭৮.৬৫ টাকা। যেখানে অক্টোবর মাসে দাম ছিল ৮৪ টাকা। জানা গিয়েছে যে, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার জন্যই বাধ্য হয়ে তেল দাম বাড়াতে হয়েছিল কেন্দ্র সরকার কে। কিন্তু যেদিনই আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কম হয়েছে সেইদিন থেকেই তেল দাম কমাতে শুরু করে দিয়েছেন কেন্দ্রের মোদী সরকার। অরুন জেটলি জানিয়েছেন যে, সাধারণ মানুষের কথা ভেবেই একমাসে ৭ টাকা কমানো হল তেলের দাম।
#অগ্নিপুত্র