Press "Enter" to skip to content

বনধ সম্পর্কে তৃণমূল সরকারকে এমন কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

ইসলামপুরে ছাত্রকে গুলি করে খুন করার প্রতিবাদে ২৬ শে সেপ্টেম্বর সারা রাজ্য জুড়ে ১২ ঘন্টা বনধের ডাক দেওয়া হয়েছে রাজ্য বিজেপির তরফে। আমাদের রাজ্যে বিরোধীরা বনধ ডাকলেই নানান অশান্তি সৃস্টি করে শাসক দল এমন দাবি অনেকেরই। নানারকম ভাবে ঝুটঝামেলা করে বনধ আটকানোরর চেষ্টা করা হয় বলেও দাবি। তাই এবার সেই ঘটনা যাতে পুনরায় না ঘটে তার জন্য রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আগে থেকেই রাজ্যের শাসক দলকে হুশিয়ারি দিয়ে রাখলেন। তিনি বলেন যে, বনধে যদি কোনো রকম অশান্তি হয় প্রশাসনকেই তার দায়ভার নিতে হবে। তিনি আরও বলেন যে, আমরা কোনোরকম অশান্তি চাই না, পুরোপুরি শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রেখেই আমরা বনধ করব।

কিন্তু পুলিশ যদি আমাদের বাধা দেয় তাহলে আমরা প্রতিরোধ গড়ে তুলবো। এছাড়াও তিনি বলেন যে, সাধারণ মানুষও আমাদের সাথে আছে তাই মানুষই প্রতিবাদ করবেন পুলিশ বাধা দিতে এলে।রাজ্যে বুধবার বনধকে সফল করার জন্য বদ্ধপরিকর। ইতিমধ্যে দলের রাজ্য দফতরে এই নিয়ে রাজ্য বিজেপির বৈঠক হয়েছে।

সেই বৈঠকে ঠিক হয়েছে যে, ২৬ তারিখ বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা হাজরা এবং শ্যামবাজার থেকে দু’টি মিছিল বের করবেন এবং সেই মিছিল এসে জমায়েত হবে ধর্মতলায়। সেই মিছিলে উপস্থিত থাকবেন বিজেপি রাজ্য দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা, মুকুল রায়-সহ রাজ্যে বিজেপির বিভিন্ন নেতাকর্মীরা। বিজেপি এই দিন স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে, তারা কোনোরকম সংঘাতের পথে যেতে রাজি নন। কাউ কে জোর করে বনধ সমর্থনন করতে তারা বলবেন না।

মানুষ যা চাইবেন সেটাই হবে। রাজ্যের সাধারণ মানুষ যে এই বনধ কে সমর্থন করবেন সেই ব্যাপারে আশাবাদী বঙ্গ বিজেপি। সেই সাথে বিজেপি এটাও জানিয়ে দেন যে যদি রাজ্যের শাসক দল বা পুলিশ প্রশাসন জোরপূর্বক সাধারণ মানুষ কে বনধের বিপক্ষে যেতে বাধ্য করে। তাদের দিয়ে জোর করে দোকান-পাঠ খোলায় তাহলে তারা এর প্রতিবাদ অবশ্যই করবেন। তারা পুলিশ কে এর যোগ্য জবাব দেবেন বলে জানিয়েছেন।
#অগ্নিপুত্র