Press "Enter" to skip to content

ভেঙে পড়ল পাকিস্থানের ব্যাবসা-বাণিজ্য, বন্ধ সমস্থ এয়ারপোর্ট! পুরো PAK এমার্জেন্সিতে।

উপরে যে ম্যাপ দেখেছেন এটা গতকালের এয়ার ট্রাফিকের মানচিত্র। ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশের বিমান ট্রাফিকের মানচিত্র থেকে দুই দেশের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে। ভারতের দু- একটা বিমানবন্দর ২ ঘন্টার জন্য বন্ধ ছিল, কিন্তু তারপর সমস্থ বিমানবন্দর খুলে দেওয়া হয়। ভারতের এয়ার ট্রাফিক পুরো স্মুথ রয়েছে এবং সমস্থ দেশ বিদেশের বিমান সময় অনুযায়ী চলাচল করছে।

অন্য দিনের মতোই ভারতে বায়ু পথে যাতায়াত চলছে, প্রত্যেকদিনের মতোই এখন ভারতে ব্যাবসা-বানিজ্য ও অন্যান্য কাজকর্ম করছে। অন্যদিকে পাকিস্থানের বায়ুপথে যাতায়াত, ব্যাবসা-বাণিজ্য সমস্থকিছু সম্পূর্ণ বন্ধ। পাকিস্থানের এমার্জেন্সি লাগু থাকার জন্য সমস্থ এয়ারপোর্ট বন্ধ করে রাখা হয়েছে।
এই কারণে পাকিস্থানকে অনেক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। পাকিস্থানের ১তাও বিমান উড়ান দিতে পারছে না। ভারতীয়দের মধ্যে জোশ হাই রয়েছে তো অন্যদিকে পাকিস্থানীদের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে। ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে পাকিস্থানের আর্থিক রাজধানী শহর করাচিতে সন্ধ্যে হলেই কারেন্ট কাট করে দেওয়া হচ্ছে।

২৭ শে ফেব্রুয়ারি থেকে করাচিতে এই খবর ছড়িয়ে গেছিলো যে ইন্ডিয়ান নেভি করাচিতে স্ট্রাইক করতে পারে। ইন্ডিয়ান নেভির ভয়ে পাকিস্থানে এমন অবস্থা যে করাচির পুলিশ সন্ধ্যে হলে শহরের মধ্যে ঘুরে ঘুরে লাইট বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ দিচ্ছে। যার ভিডিও পাঠকদের জন্য দেওয়া হয়েছে।পাকিস্থান ভারতের সাথে ভিড়তে গিয়ে এবার বড় ভুল করে দিয়েছে, যার ফল পাকিস্থানকে ভুগতে হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী মোদীও বলেছেন যে এবার পাকিস্থান বড় ভুল করেছে।

পাকিস্থানের অবস্থা এমন যে এখন পরমাণু শব্দ ভুলে গিয়ে আলোচনার গল্প শুরু করেছে। একইসাথে পাকিস্থান, ভারতে থাকা তাদের দালাল টুকরে টুকরে গ্যাংকে সক্রিয় করে দিয়েছে যাতে ভারতের মানুষের আক্রোশ কমানো যায়। পাকিস্থান নির্দেশ মতো ভারতের টুকরে টুকরে গ্যাং দেশের মানুষকে পুলবামার ঘটনা নিয়ে বিভ্রান্ত করার কাজ অতি নিপুণতার সাথে শুরু করেছে। মূলত পাকিস্থানকে ভারতের আক্রোশ ও ফাইনাল স্ট্রাইক থেকে বাঁচানোর জন্যই এই গ্যাং মাঠে নেমেছে।

4 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.