in ,

” হিন্দুদের অপমান করতে বার বার নিশানা করা হচ্ছে ” – ইসরো ( ISRO ) প্রাক্তন প্রধান ডি মাধবন নায়ার৷

সবরীমালা ইস্যুতে দেশের অনেকেই মুখ খুলেছেন। অনেকেই হিন্দুদের হয়ে কথা বলেছেন। তবে এবার সব কিছুকে ছাপিয়ে গেল। ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা অর্থাৎ ইসরোর প্রাপ্তন প্রধান ডি মাধবন নায়ার এবার মুখ খুললেন সবরীমালা ইস্যু নিয়ে। তিনি এবার মুখ খুলে বললেন যে এটা একটা কাপুরুষোচিত ঘটনা কারণ রাতের অন্ধকারে লুকিয়ে কোনো মহিলা ভক্ত কে এইভাবে মন্দিরে প্রবেশ করানো উচিৎ নয়। এই একই সাথে ইসরোর এই প্রাপ্তন প্রধান এইদিন অভিযোগ তোলেন কেরল সরকারের উপর। উনার অভিযোগ মিথ্যা মিথ্যা এইরকম একটা ছোট ব্যাপারে কেরল সরকার মাতামাতি করছে।

কিছুদিন আগে বিজেপি দলের কাজে অনুপ্রাণিত হয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন ইসরো ( ISRO ) প্রাপ্তন এই চেয়্যারম্যান। এইদিন উনি বলেন যে রাতের অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে যে কেউই মন্দিরে প্রবেশ করতে পারেন। কিন্তু এইভাবে মন্দিরের পরম্পরা ভঙ্গ করে মন্দিরে প্রবেশ কাপুরুষোচিত কাজের থেকে কোনো অংশে কম নয়। ইনি এইদিন কেরল সরকার কে সরাসরি আক্রমণ করে বলেন যে, বন্যায় কেরলের চরম ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কিন্তু সেইদিকে নজর নেই কেরল সরকারের। সেই সমস্ত ক্ষয়ক্ষতির পুন‌‌‍:সংস্কার না করে এইভাবে তুচ্ছ ঘটনাকে নিয়ে পড়ে আছে কেরল সরকার।

এইদিন উনি আরও বলেন। উনি বলেছেন যে, দেশে অনেক ধর্ম রয়েছে হিন্দু, শিখ, খ্রিস্টান, মুসলিম। প্রত্যেক ধর্মের নিজস্ব কিছু রীতিনীতি আচার ব্যবস্থা রয়েছে আর সেগুলিকে সম্মান জানানো উচিৎ সকলের। কিন্তু সেটা না করে ক্রমাগত আক্রমণ করা হচ্ছে হিন্দুধর্ম কে। এর থেকে এটাই বোঝা যাচ্ছে যে, কেরল সরকার সমস্ত কিছু করছে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে।

সবরীমালা মন্দির নিয়ে সুপ্রিমকোর্টের রায় আর সেখানে মহিলাদের প্রবেশের চেষ্টা এই দুই কারণে এখন চরম উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে কেরল। বিভিন্ন হিন্দুসংগঠন গুলি তাদের ঐতিহ্য বাঁচানোর জন্য প্রতিবাদে সরব হয়েছেন। তাই ইসরোর প্রাপ্তন চেয়ারম্যান মনে করেন যে এমন পরিস্থিতিতে কেরল সরকারের যথাযথ সক্রিয় ভূমিকা গ্রহণ করা উচিৎ যাতে হিন্দুদের ঐতিহ্য রক্ষা পায়।
#অগ্নিপুত্র

Leave a Reply

“ভারতের ২০১৯ এর নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী জিতুন”: পুতিন, রুশ রাষ্ট্রপতি।

“দেশ ও সমাজ রক্ষার জন্য সেনা, সংবিধানের পর RSS এর প্রয়োজন”: সুপ্রিমকোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি।