Press "Enter" to skip to content

মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থানে কৃষকের খারাপ দিন শুরু ! কংগ্রেসের চক্রান্তে ফেঁসে গেল কৃষকরা

কিছুদিন আগে ে বিধানসভা নির্বাচনে জয়লাভ করার পর সেখানকার ক্ষমতায় আসে । রাজস্থানবাসী কে মিথ্যা আসা দিয়ে তাদের বোকা বানিয়ে ক্ষমতায় এসেছে । আর এখন প্রতিটি পদে পদে তার মূল্য দিতে হচ্ছে রাজস্থানবাসী কে। এখন সমস্ত রাজস্থানবাসী বুঝে গিয়েছেন যে তাদের কে পুরোপুরি ভাবে ঠকিয়েছে । নিজেদের সুদিনের কথা ভেবে রাজস্থানের যে কৃষকরা কে ক্ষমতায় এনেছিল এখন তাদেরই অবস্থা আশঙ্কাজনক। কারণ কৃষকদের চাষের জন্য যেটা সবথেকে বেশি প্রয়োজন সেই ইউরিয়া গত এক সপ্তাহ ধরে পাচ্ছেন না রাজস্থানের গরিব কৃষকরা। গরিব কৃষকরা চাষের কাজ ছেড়ে রোজ গিয়ে লাইন দিচ্ছেন সরকারি বিপনন কেন্দ্রে কিন্তু দিনের শেষে তাদের ফিরতে হচ্ছে খালি হাতে। আর এই ব্যাপারে ক্ষুব্ধ কৃষকরা সরকারি আধিকারিকদের কাছে অভিযোগ জানাতে গেলে তাদের কে পড়তে হচ্ছে পুলিশি রোষের মুখে। ইতিমধ্যে এই ইস্যু কে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকবার রাজস্থানে হয়েছে পুলিশ জনতা খন্ড যুদ্ধ।

শুধুমাত্র রাজস্থানই নয়, কংগ্রেস কে ক্ষমতায় এনে এই মুহূর্তে আরেক রাজ্যও খুব পস্তাচ্ছেন। তারাও ভাবছেন যে এইভাবে বোকা বানালো হল তাদের। আর সেই রাজ্য হল ের অবস্থা এই মুহূর্তে রাজস্থানের থেকেও আশঙ্কাজনক। সেখানেও পাওয়া যাচ্ছে না চাষের জন্য উপযোগী সার। সেখানকার কৃষকরা দাবি করছেন যে, আমরা এতদিন ধরে এত কষ্ট, এত টাকা খরচ করে চাষ করেছি এই সময় যদি চাষের উপযোগী সার অর্থাৎ ইউরিয়া না পাওয়া যায় তাহলে ক্ষেতের মধ্যে থাকা সরিষা, গম ইত্যাদি সকল ফসল নষ্ট হয়ে যাবে। নানান কীটপতঙ্গ সেই সমস্ত ফসল খেয়ে নষ্ট করে দেবে। ফলে তাদের অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে। এমনকি ফসল নষ্ট হলে না খেতে পেয়ে মারা যাবার আশঙ্কা প্রকাশ করছে কৃষকরা।

কিন্তু এখন এই সব গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা অর্থাৎ কৃষকদের এই দুর্দিনের কথা কোনো মিডিয়া দেখাবে না। উল্লেখ্য, কৃষকরা বাজারের কোনো খোলা দোকানের পরিবর্তে সরকারের কাছ থেকেই সরাসরি ইউরিয়া ক্রয় করে। কারণ এই ইউরিয়ার উপর দেশের কেন্দ্র সরকার অনেক পরিমাণে ভূর্তকি দেয়। তাই অন্য জায়গায় তুলনায় সরকারের কোষাগারে ইউরিয়া ক্রয় করলে সেটা অনেক সস্তায় পাওয়া যায়। ফলে কৃষকদের বেশ সুবিধা হয়।

 

বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে যে, ২০১৪ সালে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্যোগে দেশের সমস্ত কৃষকদের কম মূল্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে ইউরিয়া দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। আর ঠিক এই কারণেই অর্থাৎ মোদীজির জন্য দেশের কোনো প্রান্তের কৃষকদের বিগত চার বছর এমন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় নি।
কিন্তু দেশবিরোধী কিছু মিডিয়া দেশের একমাত্র জনদরদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজিকে উৎখ্যান করার জন্য বেশ কয়েকবার মিথ্যা প্রচার চালিয়েছিল। আর তাদের সেই প্রচারে তাদের কে সাপোর্ট করেছিল দেশবিরোধী তথা পাকিস্তান প্রেমী কিছু রাজনৈতিক দল যেমন কংগ্রেস।
কিন্তু এখন যখন সত্যিকরে কৃষকদের করুন অবস্থা হয়েছে কংগ্রেসের শাসনাধীন রাজ্যে তখন তাদের মুখে কুলুপ। কাউ কে প্রতিবাদ করতে দেখা যাচ্ছে না।
#অগ্নিপুত্র

8 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.