Press "Enter" to skip to content

প্ৰধানমন্ত্রী মোদীকে হত্যার পরিকল্পনাকারীদের পাঁচ জন গ্রেপ্তার। এদের পরিচয় জানলে চোখ কপালে উঠবে।

ভারতের রাজনৈতিক সমস্যা খুঁটিয়ে দেখলে দেশের এত সমস্যা চোখে পড়বে যা আপনাকে বিচলিত করে তুলবে। কিন্তু বর্তমানে সকল সমস্যার একটা ওষুধ রয়েছে তা হলো । কট্টরপন্থী থেকে শুরু করে , জঙ্গি, আতঙ্কবাদী সকলের জন্য একটাই ওষুধ- মোদী। আর এই কারণেই দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হত্যার জন্য অশুভ শক্তিগুলি উঠে পড়ে লেগেছে। আপনাদের জানিয়ে দি দেশের সুরক্ষা এজেন্সি টানা তদন্ত করার পর ৫ ভয়ঙ্কর নকশালীকে গ্রেপ্তার করেছে। এরা সকলেই প্রধান মন্ত্রীকে হত্যার জন্য পরিকল্পনা তৈরি করছিল। অনুসন্ধান বিভাগ ও সুরক্ষা এজেন্সি বহুদিনের তদন্ত করার পর এদেরকে গ্রেপ্তার করেছে। এই ৫ ভয়ঙ্কর নকশালীকে গ্রেপ্তারের পর দেশের বুদ্ধিজীবী বর্গ, বামপন্থী পার্টি ও কংগ্রেস মিডিয়ার মধ্যে ভূমিকম্পের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ করা কিছু নেতা এদের সমর্থনে কোর্টে হাজির হয়েছে।

কংগ্রেস ও বামপন্থী দল একটু বেশি বিচলিত হয়ে পড়েছে। আপনাদের জানিয়ে দি মিডিয়া এই ভয়ানক নকশালীদের মানবাধিকার কার্যকর্তা বলে প্রচার করতে আর এখনও করে চলেছে। প্রথমে তো আপনাদের জানিয়ে দি দেশে এই রকম যত মানবাধিকার কার্যকর্তা রয়েছে প্রত্যেকেই নকশালী সমর্থক এবং সরাসরি নকশালীদের সাথে এদের যোগ রয়েছে। আরেক বিষয় এই যে এরা প্রত্যেকেই হিন্দু থেকে খ্রিষ্টানে ধর্মান্তরিত হয়েছে অর্থাৎ প্রত্যেকেই নিজেদের ধর্মপরিবর্তন করেছে। এরা প্রত্যেকেই NGO এর সাথে যুক্ত রয়েছে এবং সকলের হিন্দু বিরোধী, ভারত বিরোধী, সেনা বিরোধী কাজের সাথে সরাসরি সংযোগ রয়েছে।

এই সমস্থ তথ্যই মিডিয়ার কাছে রয়েছে কিন্তু মিডিয়া সমস্থ বিষয় দেশের জনগণের থেকে লুকিয়ে এদেরকে সামাজিক কার্যকর্তা ও মানবাধিকার কার্যকর্তা বলে প্রচার করে। যাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা সকলেই নকশালী ও জিহাদি আতঙ্কবাদীর সমর্থক। ইয়াকুব মেমনের জন্য কোর্ট যাওয়া ও নকশালীদের পক্ষে কথা বলা এদের মুখ্য কাজ। আপনাদের জানিয়ে দি এই সমস্ত কাজের জন্য এরা বিদেশ থেকে বিশাল পরিমান অর্থ ফান্ডিং পান। এই তথাকথিত মানবাধিকারিকরা কখনো একজন সাধারণ মানুষের হয়ে মুখ খোলেন না ।

এরা তখনই মুখ খোলে যখন সেনা পাথরবাজ, নকশালী ও আতঙ্কবাদীদের উপর একশন শুরু করে। মিডিয়া এদেরকে মানবাধিকারিক কার্যকর্তা বললেও এরা আসলে জঙ্গি ও ভারত বিরোধী কার্যকর্তা। জানিয়ে দি, দেশের দালাল মিডিয়া এখন মুখে লাগাম লাগিয়ে খবর চেপে রাখার ও এদের আসল পরিচয় লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করছে। এখন তো মাত্র ৫ নকশালী গ্রেপ্তার হয়েছে এদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর আরো কত বড়ো মাথা বেরিয়ে আসে সেটাই দেখার।