Press "Enter" to skip to content

গান্ধী পরিবার আইনের জালে ফেঁসেই চলেছে। এবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর স্বামীর উপর উপর শুরু হলো আইনি তদন্ত।

মোদী সরকার কেন্দ্রে আসার পড়ে থেকে একের পর একে বড়ো নেতা ও প্রভাবশালী ব্যাক্তিরা আইনের জালে ফেঁসেই চলেছেন। সম্প্রতি খবর পাওয়া যাচ্ছে সোনিয়া গান্ধীর মেয়ের স্বামী অর্থাৎ রবার্ট ভদ্রা আইনের জালে ফেঁসে গেছেন। মোদী সরকারের একটা বড়ো পদক্ষেপের পর রবার্ট সমস্যায় পড়েছেন বলে সূত্রের খবর।

আরোও পড়ুন –  প্রাণ দিয়ে ভারতকে উপহার দিয়েছিলেন টাইগার হিল!! আজ সেই মহান মনোজ কুমার পান্ডের জয়ন্তী দিবস।

আসলে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর জামাইবাবু আয়কর বিভাগের জালে পড়েগিয়েছেন। আয়কর বিভাগ ৪২ কোটি টাকার অজানা সম্পত্তির ব্যাপারে রবার্ট ভাদ্রকে নোটিস দিয়েছে। অজ্ঞাত সোর্স থেকে আয় করার মামলায় আয়কর বিভাগ রবার্ট ভাদ্রকে ২৫ কোটি টাকা জমা করার জন্যেও নির্দেশ দিয়েছে। এই টাকা জমা করার জন্য রবার্ট ভদ্রাকে ৩০ দিন সময় দেওয়া হয়েছে। এই মামলা স্কাইলাইট হসপিটালের সাথে সম্পর্কিত বলে জানা গিয়েছে। এই ক্ষেতে ৯৯% মালিকানা সোনিয়ার মেয়ের বর রবার্টের নামে রয়েছে।

রবার্ট এই মামলা থেকে বাঁচবার জন্য মামলাটি প্রথমে হাইকোর্ট ও তারপর সুপ্রিম কোর্টে নিয়েগেছিলো। কিন্তু দুই জায়গাতেই রবার্টের দাবি খারিজ করে দেওয়া হয়। উল্লেখযোগ্য, আগের বছরেই এই মামলায় প্রবর্তন নির্দেশলয় দুই ব্যাক্তিকে গ্রেপ্তার করেছিল। ২০১৪ সালে মোদী সরকার আসার পর অবৈধ সম্পত্তি ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ইডিকে কড়ভাবে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেয় যার পরেই ২০১৫ সালে এই ব্যাপারে মামলা দায়ের করেছিল ইডি।