Press "Enter" to skip to content

গীতা হল ‘Army Manual”, আমেরিকা তাঁদের সেনার জন্য ৩০ হাজার গীতা চেয়েছিল ভারতের থেকেঃ Maj Gen সুভাষ শরণ

মেজর জেনারেল সুভাষ শরণ শ্রীমদ্ভাগবত গীতা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা বললেন। জেনারেল শরণ বলেন, শ্রীকৃষ্ণের মুখ থেকে বেরানো শ্রীমদ্ভাগবত গীতা একটি ‘Military Manual” আর সেনার প্রতিটি জওয়ানদের এটা অনুসরণ করা উচিত। জেনারেল শরণ উত্তর প্রদেশ আর উত্তরাখণ্ডের আর্মিতে জয়েন এর অ্যাডিশনাল জেনারেল। মেজর জেনারেল বলেন, শ্রীমদ্ভাগবত গীতা আমাদের জীবনে আসা সমস্ত সমস্যার সাথে মোকাবিলা করার জন্য আমাদের প্রস্তুত রাখে। রিক্রুটমেন্ট র‍্যালির প্রথম রাউন্ডের পর শুক্রবার ( ২১ জুন ) মেরঠে পৌঁছে এই কথা বলেন মেজর জেনারেল। প্রথম রাউন্ডের প্রক্রিয়া উত্তর প্রদেশের বাগপতে ২৫ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত হয়েছিল।

মেজর জেনারেল শরণ বলেন, শ্রীমদ্ভাগবত গীতাতে সেই সমস্ত শিক্ষা আছে, যেগুলো যুদ্ধের সময় দেওয়া হয়। উনি এও বলেন যে, শ্রীমদ্ভাগবত গীতা শুধু মাত্র একটা ধর্মের পবিত্র গ্রন্থ না, এটা সমস্ত যুবকদের পড়া উচিত, কারণ এই ধর্ম গ্রন্থ আমাদের জীবনে আসা সব সমস্যার সমাধান করতে পারে। উনি বলেন, ‘কোন যুদ্ধের ময়দানে আমরা কেবল মাত্র যুদ্ধের কথা বলি, আর এই জন্য আমি গীতাকে সৈন্য নিয়ামবলী হিসেবে দেখি।

মেজর জেনারেল সুভাষ শরণ বলেন, আমেরিকান সেনা তাঁদের জওয়ানদের ইরাকে পাঠানোর আগে শ্রীমদ্ভাগবত গীতা দিয়েছিল। আর তাঁরা ভারতের কাছে বিশেষ অনুরোধ করে শ্রীমদ্ভাগবত গীতা চেয়েছিল। শরণের অনুযায়ী, নিজের সেনাদের ‘কর্ম যোগের” গুরুত্ব সেখানর জন্য আমেরিকা ভারতের থেকে ৩০০০০ শ্রীমদ্ভাগবত গীতা নিয়েছিল।

সেনাতে ভর্তি নিয়ে উনি বলেন, এই বছর গত বছরের তুলনায় দেড় গুন বেশি যুবক সেনাতে ভর্তি হয়েছে। উনি বলেন, আরও বেশি করে যুবক সেনাতে ভর্তি হোক সেটাই চাই আমি, বিশেষ করে পশ্চিম উত্তর প্রদেশ থেকে। পশ্চিম উত্তর প্রদেশ থেকে গত বছর ৯০০ যুবক সেনাতে ভর্তি হয়েছিল, আর এবছর সেটা বেড়ে ১৫০০ হয়ে গেছে।

মেজর জেনারেল শনিবার ভারতীয় মহিলারা সেনাতে ভর্তি হয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন বলে জানান। তিনি বলেন, মহিলাদের সেনাতে ভর্তি এই বছরের আগস্ট সেপ্টেম্বর মাসে শুরু হবে। এই প্রক্রিয়া লখনৌ থেকে শুরু হবে। ওই মহিলাদের ট্রেনিং ২০২০ এর মধ্যে সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। জেনারেল শরণ বলেন, এটা শুধু শুরু, যত সময় বদলাবে, সেনাতে মহিলাদের গুরুত্বপূর্ণ স্থান দেওয়া হবে।