“আতঙ্কবাদের কোনো ধর্ম হয়না কিন্তু আতঙ্কবাদের বিরুদ্ধে বললে আমাকে ইসলাম বিরোধী কেন বলা হয়”: ইমাম তৌহিদী,ইসলামিক স্কলার।

ইসলামের আড়ালে যারা কট্টরপন্থী ও উগ্রবাদী কার্যকলাপ চালায় তাদের আরো একবার পুরোপুরিভাবে ফাঁস করতে গিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে দিয়েছেন ইমাম তৌহিদি। বিশ্বজুড়ে যত কট্টরপন্থী, বামপন্থী ও গোঁড়া ইসলামিক ধর্মগুরু রয়েছে তারা প্রত্যেকেই আতঙ্কবাদের সমর্থক এবং এরা প্রত্যেকেই আতঙ্কবাদের মূল স্রোতকে বিশ্ববাসীর সাথে আড়াল করে রাখার চেষ্টা করে। বামপন্থী ও কট্টরপন্থীরা দাবি করে গরিবী সমস্যার জন্য আতঙ্কবাদ উৎপন্ন হয়। কিন্তু আসলে পৃথিবীর সমস্থ বড়ো আতঙ্কবাদীরা কোটিপতি। সোজা কথায় বামপন্থী ও কট্টরপন্থীরা গরীবিকে আতঙ্কবাদের সাথে জুড়ে গবির মানুষদের অপমান করে। আসলে আতঙ্কবাদের মূল স্রোত অন্য স্থানে যেটা মানুষের থেকে লুকিয়ে রাখতে চাই বামপন্থী ও কট্টরপন্থীরা। ভারতে প্রায় বলা হয় যে আতঙ্কবাদের কোনো ধৰ্ম হয় না।

কিন্তু যখন আতঙ্কবাদীর মৃতদেহ জ্বালিয়ে দেওয়ার কথা বলা হয় তখন কট্টরপন্থীরা শবদেহকে ইসলামিক নীতি মেনে শেষ কার্য করার দাবি তোলে। তবে এটা শুধু ভারতে নয়, পুরো বিশ্বেই এই ঘটনা ঘটে। অর্থাৎ পুরো দুমুখো সাপের মতো কার্য করে কট্টরপন্থীরা। এই রকম দুমুখো সাপ জাতীয় ব্যাক্তিদের লিখিতভাবে নিন্দা করেছেন ইমাম তৌহিদি।

উনি বলেছেন, ” প্রথমে আমার বিরোধীরা বলে ইসলামের সাথে আতঙ্কবাদের সম্পর্ক নেই, এরপর যখন আমি তাদের কথা মেনে নিয়ে শুধুমাত্র আতঙ্কবাদের নিন্দা , সমালোচনা করি তখন আমাকে ইসলাম বিরোধী তকমা দেওয়া হয়।” অথচ কিছু সময় আগেই বিরোধীরা দাবি করেছিল যে ইসলামের সাথে আতঙ্কবাদের সম্পর্ক নেই।

উনার মতে বিশ্বের সমস্ত কট্টরপন্থী, তথাকথিত সেকুলার ও বামপন্থীদের অবস্থা একই। সকলেই আতঙ্কবাদের শিকড়ে মিথ্যে মাটি ঢাকা দিয়ে রাখতে চাই। ইমাম তৌহিদীর এই মন্তব্য জুড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের ঝড় শুরু হয়েছে। জানিয়ে দি, ইমাম তৌহিদীকে অনেক মুসলিম পছন্দ না করলেও, উনি নিজে একজন ইমাম। ইমাম তৌহিদীর পুরো নাম মহম্মদ তৌহিদী যিনি অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা এবং একজন সিয়া মুসলিম ইস্কোলার।

Leave a Reply

Open

Close