Press "Enter" to skip to content

মোদী আমলে বিশ্বের ষষ্ঠ বৃহৎ অর্থব্যবস্থার দেশ হয়ে গেলো ভারত, রাজকোষের ঘাটতি কমে দাঁড়াল …

দেশ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সময়কালেই সর্বাধিক আর্থিক উন্নতির সম্মুখীন হয়েছে, এমনটাই দাবি উঠে আসছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সমীক্ষায়। ২০১৩-১৪ অর্থবর্ষে যেখানে ভারত বিশ্বের ১১তম বৃহত্তম অর্থ ব্যবস্থা ছিল তা ২০১৮-১৯ এ ফ্রান্সকে টপকে পৃথিবীর ষষ্ঠ অর্থ ব্যবস্থায় পরিণত হয়েছে। মোদী সরকারের কার্যকালেই দেশে GST এর মোট বৃহৎ অপ্রত্যক্ষ কর সংস্কারটি করা হয়েছে জেক বিশেষজ্ঞরা দেশের আর্থিক স্বাধীনতা হিসেবে ব্যক্ত করছেন

গতকাল অর্থমন্ত্রী পীযুষ গোয়েল বাজেট পেশ করার সময় বলেন ভারত এই মুহূর্তে সর্বাধিক দ্রুত গতিতে উন্নতি করা পৃথিবীর ষষ্ঠ অর্থব্যবস্থা, যা খুব তাড়াতাড়ি ইউনাইটেড কিংডমকে সরিয়ে পঞ্চম স্থান দখল করে নেবে।

অর্থমন্ত্রী আরও জানান যে বর্তমানে যেখানে জিডিপি বৃদ্ধি হার ৭.৩% তা ২০১২-১৩ অর্থবর্ষে অর্থাৎ কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন UPA সরকারের আমলে ছিল মাত্র ৪.৯% ২০০০-২০১৪ সল্ অবধি মুদ্রাস্ফীতি হার যেখানে ১০.১% ছিল তা বর্তমান সরকার কমিয়ে মাত্র ৪.৬% এ নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে , যা বর্তমান কেন্দ্র সরকারের একটি বড় সাফল্য।

ডিসেম্বর ২০১৮তে যে মুদ্রাস্ফীতি হার ছিল সর্বনিম্ন, ২.১৯% I অর্থমন্ত্রী জানান যে এই বছর চালু খাতা লোকসানের হার মাত্র ২.৫% থাকার সম্ভাবনা যা ৫বছর পূর্বে ৫.৬% ছিল। পীযুষ গোয়েল জানান শক্তিশালী মজবুত ভিতের ওপর আর্থিক নীতিকে রক্ষা ও একটি স্থির সরকার সরকার থাকার কারণে গত পাঁচ বছরে ২৩৯ বিলিয়ন ডলারের এক বিরাট অঙ্কের বিদেশী বিনিয়োগ ভারতে এসেছে যা নজিরবিহীন।

এর আগে বিশ্ব ব্যাংক মোদী সরকারের স্বস্তি বাড়িয়ে দেশ যে অর্থনীতির দিক দিয়ে শক্তিশালী হচ্ছে সেটার আভাষ দিয়েছিল। তাছাড়াও পিডাব্লিউসি একটি রিপোর্টে চীনের থেকে ভারতের অর্থনীতি মজবুত হচ্ছে সেটা জানিয়েছিল। কিছুদিন আগেই বিশ্বাসযোগ্য দেশের তালিকায় ভারত এই প্রথমবার চুতুর্থ স্থান দখল করেছে। মোদী আমলে যে ভারত এগিয়েই চলেছে সেটা বলাই বাহুল্য।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.