Press "Enter" to skip to content

“যুদ্ধ ঘোষণা হলেই পাকিস্থানকে চার টুকরো করুক ভারত”

এবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছে ইমরান খান। এই ইমরান খান খুবই আক্রামনাত্বক তাই এবার হয়তো পাকিস্থান ভারতবর্ষের সাথে যুদ্ধ লাগতে পারে এমনটাই দাবি করলেন বিজেপির প্রবীন নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। আপনাদের জানিয়ে দি, সুব্রামানিয়াম স্বামী এমন একজন সাংসদ যিনি বহু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে বহুবার দেশের সামনে তুলে ধরেছেন এবং পরবর্তীকালে তা সঠিক প্রমাণিত হয়েছে। একটি সংবাদ মাধ্যমকে তার দেওয়া বিবৃতিতে তিনি বলেছেন যে, এবার পাকিস্তান ভারতের সাথে যুদ্ধ লাগতে পারে। যদি তারা এটা করে তাহলে এটাই হবে তাদের ঐতিহাসিক ভুল। আমাদের দেশের সেনা জাওয়ানদের এই জন্য সব সময় তৈরি থাকতে হবে। আর এই সুযোগে পাকিস্তান কে টুকরো টুকরো করে দেওয়া উচিৎ। এই রকম সুযোগ খুব কম আসে তাই সুযোগ হাত ছাড়া না করে সরকারের উচিৎ এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে পাকিস্তান কে শেষ করে দেওয়া।

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ নামে একটি রাজনৈতিক দলের নেতা হল ইমরান খান। বুধবার পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন হয় সেই নির্বাচনে ইমরানের দল কে জেতানোর জন্য নির্বাচনী প্রক্রিয়াটাই জালিয়াতিতে পরিপুষ্টি ছিল। এমনটাই দাবি করেন বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।
স্বামী এদিন বলেন যে, পাকিস্তানের নেতা ইমরান খান হল নওয়াজ শরিফের মতই একজন পুতুল। কিন্তু তিনি সেটা সামনাসামনি দেখিয়ে দিয়েছেন এটাই তার ভালো দিক। তার মতে, পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই ও সামরিক বাহিনী তাদের দেশের সমস্ত রাজনীতিবিদ দের নিজের হাতের পুতুল করে রেখেছে। তাদের কথাই সেখানে শেষ কথা।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার পাকিস্থান সেনা দ্বারা নির্বাচিত সরকার কে সরিয়ে অন্য দলের উপর দেশ চালানোর দায়িত্ব তুলে দেওয়া হল। এই নির্বাচনিতে অংশ নিয়েছিল প্রায় ১২২টি রাজনৈতিক দল। ফলে তাদের মধ্যে প্রায়ই ভোট প্রচার নিয়ে ঝ্যামেলা লেগে থাকতো। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় ঘটনা হল বালোচিস্তানের শক্তিশালী বিস্ফোরণে প্রায় ১৫০ জনের বেশি নিহত হন।

নির্বাচনের আগেই ইমরান খান প্রচার করেছিলেন যে যদি তার দল জয়লাভ করে তাহলে পাকিস্থানকে সম্পুর্ন কাশ্মীর দেওয়া হবে। এইরকম পরিস্থিতিতে এটা স্বাভাবিক যে পাকিস্থান ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করতে পারে। আর যদি পাকিস্থান এমন করে সেই সুযোগে ভারতের উচিত পাকিস্থানকে টুকরো টুকরো করে ফেলা বলে মন্তব্য সুব্রামানিয়াম স্বামী।

#অগ্নিপুত্র