Press "Enter" to skip to content

ডক্টর কালামের নামে মহাবিনাশক মিসাইল তৈরি করছে ভারত! এর সামনে টিকতে পারবে না হাইড্রোজেন বোমাও।

ভারতের স্বনির্ভর ব্রহ্মহস সুপারসনিক ক্রজ মিসাইল এবার দেশের পূর্ব রাষ্ট্রপতি ডক্টর এপিজে ের নামে রাখা হবে। দেশের মিসাইল ম্যানকে এই শ্রদ্ধাঞ্জলি ডিআরডিও দিয়েছে। ব্রহ্মস হাইপার্সোনিক মিসাইল সেই মিসাইল যা ভবিষ্যতে
ভারতকে শক্তিশালী করবে। স্বর্গীয় ও পূর্ব রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালামের এটা স্বপ্ন ছিল যে ভারত নিজে একটা হাইপারসোনিক মিসাইল তৈরী করবে। ভারতকে মিসাইলের দিক থেকে সর্বশক্তিমান করার একটা মহান লক্ষ ছিল কালাম সাহেবের।

ডিআরডিও মনে করে যে আব্দুল কালাম ব্রহ্মসের আত্মা। ব্রহ্মহসের ডিএনে ডক্টর এপিজে আব্দুল কালাম তৈরি করেছিলেন। ব্রহ্মসের মতো মিসাইল তৈরির আইডিয়া কালাম সাহেব প্রথম দিয়েছিলেন। কালাম সাহেব যে দূরদৃষ্টির স্থাপন করেছিলেন তার ফল এই ব্রহ্মহস মিসাইল। সুধীর মিশ্র বলেছেন যদি ব্রহ্মহসের নাম কালাম সাহেবের নামে রাখা তবে ভবিষ্যতে পীড়ি আরো অনুপ্রেরণা পাবে।

দেশের অনেক যুবক যুবতী মিসাইলের উপর কাজ করছে যারা উনার থেকে প্রেরিত হয়ে দেশকে সর্বোত্তম পরিণাম দেবে। ব্রহ্মস এর সুপারসনিক ভার্শন এর কাজ ২০১৫ সালের আগেই শুরু হয়েছিল। এখন মস্কোর বিজ্ঞানীরা ভারতের বিজ্ঞানীদের সাথে মিলে হাইপার্সোনিক মিসাইল তৈরি করছে। আমেরিকা এর সাথে টক্কর দেওয়ার জন্য এক্স-51, রুশ জিএলেইপি-০২, চীন স্ক্রিমাজেত ডাইমন্স্ট্রেশন এর উপর কাজ করছে যা পরে সুপারসনিক এর রূপ নেবে।

ভারত তার প্রজেক্টের উপর খুব দ্রুতগতিতে কাজ করছে। যদি ভারত প্রথম সফলতা লাভ করে তাহলে ব্রহ্মসের এই ভার্শন এর সাথে ভারত বিশ্বের প্রথম হাইপার্সোনিক মিসাইল তৈরি করা দেশ হবে। ব্রহ্মসের সুখই বিমান থেকে ফায়ার করার ট্রায়াল এই বছর পূরণ হবে। জানিয়ে দি কালাম এমন একজন ব্যাক্তি ছিলেন যার নেশা মহাভারত , গীতার মতো গ্রন্থের উপর থাকতো। উনি সেই বিজ্ঞানী যিনি বহু বছর রিসার্চ করার বলেছিলেন যে ভগবান শ্রী রাম কাল্পনিক নয়, বাস্তবিক চরিত্র। হিন্দু ধর্মের প্রতি উনার বিশেষ আগ্রহের জন্য কাশ্মীরের কট্টরপন্থী মুসলিমরা উনাকে মুসলিম মানতে অস্বীকার করতেন এবং কাফের বলে উক্তি করতেন।

10 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.