Press "Enter" to skip to content

প্রধানমন্ত্রী মোদীর কূটনৈতিক চাপে কালই পাইলট অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দেবে পাকিস্থান।

ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। আর এর মধ্যে পাকিস্তানি বিদেশ মন্ত্রী বয়ান জারি করে বলেন, ‘পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে আলোচনা করতে চেয়েছেন” যদিও ভারত পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রীর প্রস্তাব গ্রহণ করেনি। ভারত জানিয়েছে যেকোন অবস্থাতেই পাইলট অভিনন্দনের মুক্তি চাই।

উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনের মুক্তি নিয়ে ভারত পাকিস্তানের কোন শর্তই মানবে না বলে জানিয়েছে। বিদেশ মন্ত্রালয়ের সূত্র জানায়, পাকিস্তান পাইলটের মুক্তি নিয়ে যদি কোন প্রকারের শর্ত রাখে তাহলে, সেটা অনৈতিক হবে। সূত্র অনুযায়ী, পাইলটের মুক্তির মামলায় পাকিস্তান কান্দাহার এর মত পরিস্থিতি তৈরি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু উইং কম্যান্ডের মুক্তি নিয়ে ভারত পাকিস্তানের সাথে কোন সমঝোতাই করবে না। সূত্রের খবর, কালকেই অভিন্দনকে ছাড়বে পাকিস্থান। জেনেভা সন্ধি অনুযায়ী কামান্ডোর অভিনন্দনকে ছাড়তে বাধ্য পাকিস্থান আর সেটাই কাল করবে পাকিস্থান।

যুদ্ধ বন্দিকে বিনা শর্তেই ছাড়ার নিয়ম। আর উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন কে বন্দি করে আবার কোন ঘৃণ্য চক্রান্ত করতে চাইছে পাকিস্তান। কাল ভারতের বায়ু সীমা লঙ্ঘন করে ভারতে ঢোকার একটু পরেই পাক সেনা মুখপাত্র বলেছিলেন যে, পাকিস্তান যুদ্ধ চায়না। তাঁরা শান্তি চায়।

কিন্তু আজ আবার ভারতের বায়ু সীমা লঙ্ঘন করে পাকিস্তানের দুটি ফাইটার জেট ভারতে ঢুকেছে। তাছাড়াও জম্মু কাশ্মীরের বিভিন্ন যায়গায় যুদ্ধ বিরতি বারবার লঙ্ঘন করছে পাকিস্তান। এর পরেও এরা কি বলে এরা শান্তি চায়?

Be First to Comment

Leave a Reply