Press "Enter" to skip to content

রাশিয়া থেকে ১৮ টি সুখোই আর ২০ টি মিগ-২৯ বিমান কিনে, আরও মজবুত করা হচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনাকে

ভারতীয় বায়ুসেনা রাশিয়া থেকে ১৮ টি মানে এক স্কোয়াড্রন সুখোই-৩০ মাল্টিরোল ফাইটার জেট কেনার প্রস্তুতি নিচ্ছে। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সুত্র থেকে জানা যায় যে, দুই দেশের মধ্যে এই চুক্তি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। সুত্র থেকে এটাও জানা যায় যে, এই চুক্তি ফাস্ট ট্র্যাক রুটে হচ্ছে, তাই চুক্তি সম্পন্ন হলেই খুব তাড়াতাড়ি যুদ্ধ বিমান ভারতের  হাতে তুলে দেওয়া হবে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার চিফ মার্শাল বি.এস ধানোয়া ৯ই জুলাই থেকে ১২ই জুলাই পর্যন্ত রাশিয়ার সফরে থাকবেন।

ভারত ৯০ এর দশকে রাশিয়া থেকে ২৭২ টি সুখোই বিমানের চুক্তি করেছিল। যার মধ্যে ৫০ টি রাশিয়ায় আর বাকি গুলো ভারতে তৈরি হত। এটি নির্ধারিত সময়েই চলছিল আর ভারতীয় বায়ুসেনায় ২০০ টির ও বেশি সুখোই বিমান নিজুক্ত হয়েছিল। রাশিয়া থেকে আগত নতুন ১৮ টি সুখোই বিমান  দিয়ে একটি স্কোয়াড্রন তৈরি হবে।

রাশিয়ার থেকে তাঁদের স্টোরে রাখা ২০ টি মিগ-২৯ আপগ্রেড বিমান কেনারও কথা বার্তা চালাচ্ছে ভারত। ওই মিগ ২৯ বিমান গুলো ভারত খুব কম দামে পাচ্ছে। আপাতত ৫০ টি মিগ-২৯ এর তিনটি স্কোয়াড্রন ভারতীয় বায়ুসেনায় আছে। মিগ-২৯ ও একটি মাল্টি রোল ফাইটার জেট, যেটা ১৯৮৫ থেকে ভারত তাঁদের বায়ুসেনায় নিযুক্ত করে চলেছে।

ভারতীয় বায়ুসেনা এই সময় তাঁদের সবথেকে খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। ভারতীয় বায়ুসেনায় স্বীকৃত ৪২ টি স্কোয়াড্রন এর শক্তি কমে এখন ৩১ টি হয়ে গেছে। এদের মধ্যে ৬০ এর দশক থেকে  মিগ-২১ আর ৭০ এর দশক থেকে জ্যাগুয়ার বায়ুসেনায় যুক্ত ছিল।

স্বদেশী লাইট ওয়েট যুদ্ধ বিমান তেজসের উৎপাদন শুরু হয়েছে, তবে এখনো পর্যন্ত একটি স্কোয়াড্রন ও তৈরি করা যায়নি। ফ্রান্সের থেকে ৩৬ টি রাফাল বিমান কেনা হয়েছে, যেগুলো এবছরের সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে বায়ুসেনার হাতে এসে পৌঁছাবে। রাফাল দিয়ে দুটি স্কোয়াড্রন তৈরি করা হবে, যেগুলোকে আম্বালা আর পাসিঘাটে মোতায়েন করা হবে।