Press "Enter" to skip to content

“বদলা নয়-শান্তি চাই, পাকিস্তানের সাথে বার্তালাপ করে সমাধান করা হোক”: বুদ্ধিজীবী।

গতকাল পুলবামায় পাকিস্তানের পোষা জিহাদীরা যে আতঙ্কবাদী হামলা করিয়েছে তা নিয়ে পুরো দেশ উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে। সমস্থ দেশবাসী এক সুরে বদলার জন্য আওয়াজ তুলেছে। সকল দেশবাসী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। দেশজুড়ে মানুষজন পাকিস্থানের পতাকা পুড়িয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এবং বলিদানি হওয়া জওয়ানদের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়েছে। কিন্তু গতকালের ঘটনা নিয়ে দেশের ভেতর থাকা দেশদ্রোহীরা বেশ আনন্দউৎসব শুরু করেছে।

আলীগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটির কিছু ছাত্র আতঙ্কবাদী হামলা নিয়ে খুশি ব্যাক্ত করেছে। একইসাথে টাকা খেয়ে খবর পরিবেশন করা কিছু মিডিয়া ও সাংবাদিক পাকিস্থানের দালালি করতে নেমে পড়েছে। দেশের মানুষ সেনা জওয়ানদের পরিবারের আবেগকে অনুভব করে বদলার জন্য দাবি তুলেছে কিন্তু বিক্রিত মিডিয়া এই দাবিকে লঘু করার চেষ্টায় নেমেছে। রানা আয়ুব নামক এক সাংবাদিক বদলা চাওয়া মানুষদের মানসিক রোগী বলে কটাক্ষ করেছেন- এই খবর আমরা আগেই পাঠকদের জানিয়েছিলাম। একইসাথে টাইমস অফ ইন্ডিয়া নামক ইংরাজি সংবাদপত্র পাকিস্থানকে নির্দোষ ক্লিন চিট করে দিয়েছে। ভারতে ব্যাবসা  চালিয়ে পাকিস্থানের দালালি শুরু করেছে এই সংবাদ মাধ্যম।

পাকিস্থানের থেকে ভারত যাতে বদলা না নেয় তার জন্য মিডিয়া ও তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা সমগ্র প্রচেষ্টা শুরু করেছে।মাইরা শাকিল নামক এক তথাকথিত বলেছেন বদলা নেওয়ার কথা উঠানোই উচিত নয়। এই বলেছেন যারা বদলা বলদা করে চিৎকার করছেন তারা চুপ করে থাকুন। আরফা খানুন নামক আরো এক বুদ্ধিজীবীও ভারতের কার্যবাহীর বিরোধ করেছে। এই তথাকথিত ও সাংবাদিকরা পাকিস্থানকে নিয়ে কতটা চিন্তিত তা তাদের বক্তব্যেই ফুটে উঠেছে।

আশুতোষ নামক এক দালাল বুদ্ধিজীবী যিনি নিজেকে নিরপেক্ষ সাংবাদিক বলেন উনিও বামপন্থী গুরমিতের সাথে এক সুরে শান্তির বাণী শোনাচ্ছেন এবং যারা জওয়ানদের বলিদানি হওয়ার বদলা চাইছে তাদের উগ্রবাদী বলে উক্ত করেছেন। গুরমিট বলেছনে বদলা নয় শান্তি চাই, পাকিস্থানের সাথে আমাদের কথা বার্তা করে সমস্যা সমাধান করা উচিত।

আসলে এই সমস্ত বামপন্থী বুদ্ধিজীবীরা বদলার। বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলতে শুরু করেছে কারণ এরা বুঝতে পেরেছে যে জনতা এক হয়ে সেনা ও সরকারকে সমর্থন করলে পাকিস্থানের অস্থিত সংকটে পড়তে পারে। এর ফলে বুদ্ধিজীবীদের আশা ফান্ডিংও চিরকালের জন্য বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

6 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.