সীমান্তের নিয়ম ভঙ্গ করার বদলা! পাকিস্থানের ৭ বাঙ্কারকে গুড়িয়ে দিয়ে ৫ পাকিস্থানি জওয়ানকে ক্ষতম করলো ভারতীয় সেনা।

জিহাদি, কট্টরপন্থী, ধার্মিক উগ্রবাদী, জঙ্গি- এই সমস্ত এখন পাকিস্থানিদের জন্য পুরানো শব্দ হয়ে গেছে। পাকিস্থানিদের জন্য আখ্যা দেওয়ার জন্য আর কোনো ভাষা নেই। এখন পাকিস্থানিদের গালিগালাজ করতে হলে নতুন শব্দের উদ্ভব করতে হবে। এর কারণ বার বার মার খাওয়ার পরেও ভারতের উপর আক্রমণ করার জন্য এগিয়ে আসে পাকিস্থান। একদিকে যখন ভারতের প্রত্যেক সিনেমা হলে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের উপরে তৈরি হওয়া সিনেমা ধুম উঠিয়েছে তখন ভারত-পাক সীমান্তে ভারতীয় সেনা, পাকিস্থানিদের ক্ষতম করে ‘ভারত মাতার জয়’ শ্লোগানের জয়ধ্বনির সুর তুলেছে।

ভারত পাকিস্থান সীমান্তে ইসলামিক উগ্রবাদী তথা কট্টরপন্থী পাকিস্থানিদের ধোলাই শুরু করে দিয়েছে ভারতীয় সেনা। আসলে সংঘর্ষ বিরাম ভঙ্গ করে পাকিস্থানের সেনা ভারতের সেনার উপর গুলি বর্ষণ করতে শুরু করেছিল। এরপর ভারত সেনা পাকিস্থানিদের স্মরণ করিয়ে দেয় যে এটা নতুন ভারত, প্রয়োজনে শত্রুদের ঘরে ঢুকে মারতেও পিছু হটে না ভারত মাতার সন্তানরা।

পাকিস্থান নিয়ম ভঙ্গ করে ভারতের উপর আক্রমণ করার পরেই একশন শুরু করে দেয় ভারতীয় সেনা।পুঞ্জ সেক্টরে পাকিস্থানিদের লক্ষ করে গুলি বর্ষণ করে ভারতীয় সেনা। যার ফলস্বরূপ ৭ টি পাকিস্থানি ব্যাংকার ভেঙে গুঁড়ো হয়ে যায় এবং ৫ জন পাকিস্থানি জওয়ান মারা পড়ে। গতকাল ভারতকে লক্ষ করে আক্রমন চালিয়ে ছিল পাকিস্থানের সেনা এবং আজ ভারত মাতার সন্তানরা ৭ টি বাঙ্কার ধ্বংসের সাথে ৫ জন পাকিস্থানি জিহাদিকে জান্নাতে পাঠিয়ে দিয়েছে।

পাকিস্থান যদি তাদের কট্টরপন্থী চরিত্র পরিবর্তন না করে তাহলে ফল ভুগতে হবে এমন সাবধানতার লাইন আগেই টেনে দিয়েছিলেন ভারতের সেনা প্রমুখ বিপিন রাউত। কিন্তু পাকিস্থানের চরিত্র ঠিক করতে বলা আর কুকুরের লেজ সোজা করতে বলা একই ব্যাপার এর প্রমাণ পাওয়া যায় গতকাল। যারপর ভারতীয় সেনা মহম্মদ আলী জিন্নাহার বংশধরদের শিক্ষা দেওয়ার কাজে পূর্ন সফলতা লাভ করে। সবে মাত্র ইংরাজি মাসের নতুন বছরের শুরু হয়েছে আর এর মধ্যেই পাকিস্থানকে কড়া শিক্ষা দিয়ে ভারত তার ইঙ্গিত স্পষ্ট করে দিয়েছে।

Leave a Reply

you're currently offline

Open

Close