Press "Enter" to skip to content

বিশ্বগুরুর পথে ভারত! বিশ্বে ভারতের স্থান কোথায় পৌঁছেছে জানলে গর্বিত হবেন।

২০১৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে বসার পরেই ভারতকে পুনরায় বিশ্বগুরু করার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন। আর সেই মতো কাজেও নেমে পড়েছিলেন নরেন্দ্র মোদীর সরকার। ক্ষমতায় আসার সাথে সাথে নোট বন্দি, GST, মেক ইন্ডিয়ার মতো বড়ো বড়ো পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। যার ফল এখন হাতে নাতে পেয়েছে ভারতবাসী। আর্থিক থেকে সামরিক সমস্থ দিক থেকেই শক্তিশালী রূপ নিয়েছে ভারতবর্ষ। জানিয়ে দি, কংগ্রেস আমলে ভারত গ্রস ডোমেস্টিক প্রোডাক্ট নমিনালে বিশ্বের মধ্যে ভারত ৯ থেকে ১০ স্থানের মধ্যে উঠানামা করতো। কিন্তু মাত্র ৪ বছরের মাথায় ভারতকে পঞ্চম স্থানে এনে দিয়েছে। বর্তমানে বিদেশে ভারতের ছবির এক বড়ো পরিবর্তন এসেছে। তবে এই পরিবর্তন এমনি এমনি আসেনি বরং ের উপলব্ধির কারণে এসেছে যা দেশের দালাল মিডিয়া জনগণের থেকে লুকিয়েছে।

  • ক্রুড স্টিল বা কাঁচা ইস্পাত উৎপাদনে ভারত জাপানকে টপকে বর্তমানে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে। SUFI এর তথ্য অনুযায়ী মোদী সরকার আসার ১ বছরের মধ্যে অর্থাৎ ২০১৫ তে ভারত কাঁচা ইস্পাত উৎপাদনে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছিল আর ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তে ভারত জাপানকে টপকে  দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে।
  • ইতালি ও জামানিকে টপকে মোদী আমলে ভারত টেক্সটাইল এক্সপোর্টে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে। আর এই কারণে ভারতের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্থানের আর্থিক ব্যাবস্থায় বড়ো ঝটকা এসেছে।
  • মেক ইন ইন্ডিয়ার দৌলতে ভারত অটোমোবাইলে মার্কেটে জার্মানিকে পেছনে ফেলে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে। জার্মানির ৩.৮ মিলিয়ন যানবাহন সেলকে টপকে ভারত ৪.২ মিলিয়ন সেল করে ফেলেছে। এইভাবে চলতে থাকলে ২০২০ এর মধ্যে জাপানকে টপকে তৃতীয় স্থান অধিকার করে নেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
  • ইলেক্ট্রিসিটি উৎপাদনেও পিছিয়ে নেই ভারত, ইলেক্ট্রিসিটি উৎপাদনে ভারত রাশিয়াকে পেছনে ফেলে তৃতীয় স্থান দখল করে নিয়েছে।
  • ২০১৪ এর আগে পর্যন্ত ভারত ৮০% মোবাইল ও মোবাইলের সাথে জুড়ে থাকা সামগ্রী আমদানি করতো। কিন্তু মেক ইন ইন্ডিয়া প্রকল্পের ভিত্তিতে বর্তমানে ভারত দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে।
  • জানিয়ে দি ভারত চিনি উৎপাদনে ব্রাজিলকে পেছনে ফেলে প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

ভারতের এই উপলদ্ধির জন্যেই বিদেশে ভারতের ছবি বদলেছে। জানিয়ে দি কংগ্রেস আমলে ভারতের বাইরে মাত্র দুই জায়গায়(ভুটান, মালদ্বীপ) সৈন্য ক্যাম্প ছিল কিন্তু মোদী সরকার আসার ছবি সম্পুর্ন ভাবে পরিবর্তন হয়েছে। বর্তমানে তাজাকিস্থান, মেজাম্বিক, ওমান, কাতার, নেপাল, ভুটান, ভিয়েতনাম, মালদ্বীপ, সিয়েচিলস, মেদাগাস্কার এবং আরো দুটো বেস ক্যাম্পের স্থান প্রকাশ করা হয়নি(গুপ্ত রাখা হয়েছ)। এই সমস্ত জায়গায় ভারতের সেনা হাতিয়ার সহ নিযুক্ত রয়েছে বিশ্বের অন্যান্য দেশের গতিবিধির উপর লক্ষ রেখে ভারকে সুরক্ষা প্রদানের জন্য। মোদী ভারতকে শুধু আর্থিক নয় একটা সৈন্য মহাশক্তিতে পরিণত করেছে। ভারত শক্তিশালী হয়েছে বলেই সমগ্র বিশ্ব ভারতকে গুরুত্ব দিতে শুরু করেছে। দেশের দালাল মিডিয়া সমস্ত তথ্য দেশবাসীর থেকে লুকিয়ে রাখলেও এটা সত্য যে মোদী সরকার ভারতকে পুনরায় বিশ্বগুরুর আসন দেওয়ার জন্য লাগাতার কাজ করে চলেছে।