Press "Enter" to skip to content

ভারত যে কোনো সময় স্ট্রাইক করতে পারে! পাকিস্থানের হাসপাতালগুলিকে তৈরি থাকার নির্দেশ দিল পাক সরকার।

ভারত পাকিস্থানের বিরুদ্ধে আর্থিক যুদ্ধ শুরু করে দিয়েছে যার ফলাফলও ধীরে ধীরে সামনে আসছে। কিন্তু পাকিস্থানের উপর কখন সৈন্য স্ট্রাইক হবে সেটা দেখার জন্য উদ্বিগ্ন হয়ে রয়েছে প্রত্যেক ভারতবাসী। তবে ভারতীয়রা যতটা না উদ্বিগ্ন হচ্ছে তার থেকে বেশি চাপ নিচ্ছে পাকিস্থান। কারণ পাকিস্থান মনে করছে যে ভারতের সেনা যত বেশি সময় নেবে ঠিক তত বড় স্ট্রাইক হবে। ভারত এখনো পর্যন্ত পাকিস্থানের উপর সৈন্য কার্যবাহী করেনি, কিন্তু সৈন্যকার্যবাহী করবে না এমনটাও নয়।

গতকাল ভারত তার একশন প্ল্যান সম্পর্কে পরমাণু শক্তিসম্পন্ন মিত্র দেশগুলি জানিয়েছে। এর অর্থ ভারত বড় কিছু কার্যবাহী করার রূপরেখা বানিয়ে ফেলেছে। আর এই ভয়েই ভুগছে ভিখারী দেশ পাকিস্থান। পাকিস্থান সরকার বালোচ ও POK তে অবস্থিত পাক সেনা ও প্রশাসনকে  নির্দেশ দিয়েছে যুদ্ধস্থিতির মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুতি নিতে।

শুধু এই নয়, পাকিস্থান তাদের হাসপাতালগুলির উদ্যেশে একটা নির্দেশিকা জারি করেছে। সেখানে বলা হয়েছে যে তারা যেন যুদ্ধ প্রস্তুতির জন্য মেডিক্যাল সাপোর্ট তৈরি রাখে। নির্দেশিকায় আরো লেখা হয়েছে যে- আমরা আশা করছি পূর্ব মোর্চায় আপাত যুদ্ধ ক্ষেত্রের স্থিতিতে আহত জওয়ানরা সিন্ধ ও পাঞ্জাবের মিলিটারি হাসপাতাল থেকে সাপোর্ট পাবে। সিভিল হাসপাতালগুলির বেড সংখ্যা ২৫% বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

POK এর সরকার জনগণ আগাম সতর্কবার্তা জারি করে বলেছে যে যুদ্ধের সময় সুরক্ষিত রাস্তার ব্যাবহার করবেন। একইসাথে যাতে কেউ অপ্রয়োজনীয়ভাবে লাইট না বা জ্বালায় তার দিকেও খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে।LOC প্রান্তে ব্যাংকার তৈরি রাখার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। পাকিস্থান ধরেই নিয়েছে যে ভারত যে কোনো সময় স্ট্রাইক করতে পারে। তবে ভারতের বিশেষজ্ঞদের মতে ভারত এত তাড়াতাড়ি আক্রমন করবে না। পাকিস্থানকে মানসিক ও আর্থিকদিক থেকে আপাতত বিপর্যস্ত করে দেবে ভারত,তার পরেই স্ট্রাইক করা হবে।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.