Press "Enter" to skip to content

“জগন্নাথ মন্দির কোনো সেকুলার স্থান নয়”- কড়া বার্তা দিলেন পুরীর শঙ্করাচার্য নিশ্চলানন্দ সরস্বতী।

পুরীর জগন্নাথ ের নাম ও খ্যাতি পুরো বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে রয়েছে। জগন্নাথ মন্দির হিন্দুদের এমন একটা পবিত্র ধার্মিক স্থল যেখানে অহিন্দুদের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকে। এমনকি একদা এই না হওয়ায় ইন্দিরা গান্ধীকেও(ওনি ফিরোজ গান্ধীকে বিয়ে করেছিলেন) এই মন্দিরে প্রবেশ করতে হয়নি। কিন্তু কিছুদিন আগে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে যে এই মন্দিরে অহিন্দুদেরও প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পর জগন্নাথ মন্দিরের শঙ্করাচার্য নিশ্চলানন্দ সরস্বতী সাফ জনিয়েছেন যে মন্দিরে কোনো অহিন্দুকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

শঙ্করাচার্য নিশ্চলানন্দ সরস্বতী বলেন, জগন্নাথ মন্দির কোনো সেকুলার স্থান নয় এটা হিন্দুদের ধার্মিক স্থল। তিনি বলেন এটা কোনো সেকুলার বা পর্যটক স্থান নয়।একইসাথে শঙ্করাচার্য নিশ্চলানন্দ সরস্বতী বলেন গান্ধীর সমাধি সেকুলার স্থান,ওখানে যে কেউ যেতে পারে কিন্তু মন্দির কোনো সেকুলার অর্থাৎ ধর্মনিরপেক্ষ স্থান নয় ইটা হিন্দুদের ধর্মীয় স্থান। মন্দিরের পবিত্রতার উপর খেয়াল রাখা হয় তা শুধু মাত্র এই মন্দিরে হিন্দুদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

আপনাদের জানিয়ে রাখি, এই মন্দির ১২ শতাব্দিতে হিন্দুরা তৈরি করেছিল। জনগন্নাথ মন্দির খুবই অদ্ভুত এবং পুরো বিশ্বের হিন্দুধর্মাবলীর মানুষ এই মন্দিরে জগন্নাথ বিষ্ণুর দর্শন ও পূজা করার জন্য আসেন। এই মন্দিরের ব্যাপারে শুধু দুই ব্যাক্তির সিধান্ত নেওয়ার অধিকার রয়েছে, মন্দিরের মহান্ত ও পুরীর শঙ্করাচার্য এর। কিন্তু ধর্মনিরপেক্ষতা বজায় রাখতে গিয়ে এমন অবস্থা হয়েছে যে সুপ্রিম কোর্ট ে অহিন্দুদের প্রবেশ করতে দেওয়ার নির্দেশ দিচ্ছে।