Press "Enter" to skip to content

হিন্দুদের দুর্নাম করার চক্রান্ত ফাঁস, ‘জয় শ্রী রাম” না বলায় মারধরের পিছনে নাম উঠে এলো এক মুসলিম ব্যাক্তির!

জয় শ্রী নিয়ে গোটা দেশ উত্তাল হওয়ার আগে উত্তাল হয়েছিল বাংলা। ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর সামনে জয় শ্রী রাম ধ্বনি দেওয়ায় চরম শাস্তি ভোগ করতে হয়েছিল কয়েকজন ব্যাক্তিকে। এমনকি মেদিনীপুরে এক বিজেপি নেতার বাড়িতেও হামলা চালানো হয়েছিল।

এছাড়াও শুধু মাত্র জয় শ্রী রাম ধ্বনি দেওয়ার জন্য এরাজ্যে তৃণমূলের গুণ্ডাদের হাতে খুন হতে হয়েছিল জনা দশেক বিজেপি কর্মী, সমর্থকদের। তখন কেউ কোন প্রতিবাদ জানানোর সৎ ইচ্ছে দেখায় নি। তখন কোন রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব, মানবতাবাদী আর ধর্মনিরপেক্ষদের ওই ঘটনা নিয়ে নিন্দাও করতে দেখা যায়নি।

এই ঘটনার পর দেশের কয়েকটি যায়গায় জয় শ্রী রাম ধ্বনি নিয়ে গণ্ডগোল বাধে। জয় শ্রী রাম ধ্বনি দিতে অস্বীকার করায় ঝাড়খণ্ডে এক চোরকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ ও ওঠে। আরেকদিকে এরাজ্যে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে জয় শ্রী রাম না বলায় ট্রেন থেকেও ফেলে দেওয়ার ঘটনা সামনে আসে। এই ঘটনার জন্য সবা গোটা সমাজের দুর্নামে লেগে পড়ে। রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ওই মাদ্রাসা শিক্ষকের জন্য ৫০ হাজার টাকা আর্থিক সাহায্য ঘোষণাও করেন। কিন্তু জয় শ্রী রাম বলার অপরাধে তৃণমূল কর্মীদের হাতে প্রাণ হারান বিজেপি কর্মী, সমর্থকদের পরিবারকে এক টাকাও আর্থিক সাহায্য দেওয়া হয়নি ের তরফ থেকে।

এবার জয় শ্রী রাম ধ্বনি নিয়ে আবার উত্তাল রাজ্য। কিন্তু এবারের ঘটনাটা একটু অন্যরকম। এবার অভিযুক্ত কোন হিন্দু না। এবার অভিযুক্ত একজন মুসলিম ব্যাক্তি। উত্তর বঙ্গের তুফানগঞ্জে এক ব্যাক্তি জয় শ্রী রাম না বলায়, তাক কান ধরে ওঠবোস আর মারধর করলো আপস মিঞা নামের এক মুসলিম ব্যাক্তি।

এই ঘটনায় তৃণমূল বিজেপির হাত দেখছে। আরেকদিকে এই ঘটনায় আক্রান্ত এবং অভিযুক্তের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বিজেপি। বিজেপির মতে, কেউ বা কারা ইচ্ছে করে এরকম ঘটনা ঘটিয়ে হিন্দু আর বিজেপিকে দুর্নাম করার চেষ্টা করছে।