Press "Enter" to skip to content

মুহূর্তের মধ্যে অদৃশ হওয়া মহাবিনাশক হাতিয়ার তৈরি করছে ভারত! বায়ুতে উপস্থিত থাকলেও দেখতে পাবে না শত্রু পক্ষ।

ভারতের দিন প্রতিদিন শক্তিশালী হয়ে ওঠা অন্যান্য দেশের জন্য বড় সমস্যা তৈরী হয়ে উঠছে। তাতে সেটা পাকিস্থান হোক বা চীন, আমেরিকা। অবশ্য ভারত নিজের অবস্থান এমনভাবে তৈরি করছে যে কোনো দেশ ভারতকে ভয়ভীত করতে পারবে না। সম্প্রতি ভারত এমন এক ব্রহ্মাঅস্ত্র তৈরি করছে যা দেখে পুরো বিশ্ব কেঁপে উঠছে। এই অস্ত্রের নাম কালী 5000 তথা কিলো এম্পিয়ার লিনিয়ার ইনজেক্টর। এই অস্ত্র ভবিষ্যতে যুদ্ধের সমস্থ রূপকেই বদলে দেবে। এই ব্রহ্মাঅস্ত্র এতটাই ভয়ানক যে পুরো বিশ্ব এই অস্ত্রের বিষয়ে জানার জন্য উৎসুক রয়েছে। যদিও ভারত সরকার এই অস্ত্রের বিষয়ে বেশিকিছু তথ্য সার্বজনীক না করার সিধান্ত নিয়েছে।

মোদী সরকার খুবই সিক্রেট মিশনের ভিত্তিতে এই অস্ত্র তৈরি করছে। ২০১৫ সালে কংগ্রেস এই কালী 5000 এর বিষয়ে জানার জন্য সাংসদে মোদী সরকারের উপর প্রশ্ন তুলেছিল। সেই সময় মনোহর পারিকর এই গোপন অস্ত্রের ব্যাপারে জানতেন অস্বীকার করেন। পরমাণুর থেকেও ভয়ানক এই অস্ত্র ভারতের প্রাচীনতম হিন্দু গ্রন্থ বিষ্ণু পুরানের উপর রিসার্চ করে তৈরি করা হচ্ছে বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন।

কালীর দ্বারা অদৃশ লেজার আক্রমন করা সম্ভব যার মাধ্যমে আকাশেই শত্রু পক্ষের মিসাইল, বিমানের মতো হাতিয়ারকে নষ্ট করে দেওয়া সম্ভব হবে। শুধু এই নয়, লড়াকু বিমান, মহাকাশের কৃত্রিম উপগ্রহকেও এক ঝটকায় ছাই করে দিতে সক্ষম হবে এই অস্ত্র। DRDO এবং ভাবা এটোমিক রিসার্চ সেন্টার যৌথভাবে দেবী কালীর নামে এই অস্ত্র তৈরি করছে।

এই অস্ত্রতে যে টেকনিক ব্যাবহার করা হয়েছে তার মাধ্যমে অন্য দেশের নেটওয়ার্কিং এর মধ্যে গুপ্তচরবৃত্তিও করা যাবে। কিছু বিশেষজ্ঞদের মতে এই অস্ত্রের নির্মাণ কাজ সম্পূর্ন হয়ে গিয়েছে। মোদী সরকার এই অস্ত্র এর উপর আরো বিকাশ করছে। সামনের কিছু বছরের মধ্যে এই অস্ত্র সম্পূর্নভাবে তৈরি হয়ে যাবে। ভারতের হিন্দুরা খুব উদার হওয়ার কারণে বার বার বাহ্যিক আক্রমন ভারতকে সইতে হয়। তবে এবার সমগ্র বিশ্বে নিজেদের দাপট রাখার জন্য মোদী সিক্রেট মিশনের উপর জোর দিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছে। আগামীদিনে ভারতকে মহাশক্তি হিসেবে প্রস্তুত করতে এবং ভারতীয়দের সম্পূর্নরূপে সুরক্ষা প্রদান করতে এই ধরণের অস্ত্র খুবই প্রয়োজন বলেই মনে করছেন ভৌগোলিক বিশেষজ্ঞরা।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *