Press "Enter" to skip to content

“মুসলিমদের বেশি সংখ্যায় ভোট প্রদান করাতে হবে, নাহলে কংগ্রেসের ক্ষতি হবে”: কমলনাথ, কংগ্রেস নেতা।

: নেতা ( ) বললেন মুসলিমদের বেশি করে ভোট দিতে হবে কংগ্রেসকে !

কংগ্রেস পার্টির হিন্দু বিদ্বেষ নীতি এখন কংগ্রেসের উপরেই ভারী হতে শুরু করেছে। হিন্দু বিদ্বেষী নীতির জন্য এখন হিন্দুরা কংগ্রেসকে ভোট দিতে রাজি নয়। এখন কংগ্রেসের হাল এতটাই খারাপ যে ভোটে জেতার জন্য সাম্প্রদায়িক নীতি প্রণয়ন করতে হচ্ছে। এখন ভারতে হিন্দুরা যত কম সংখ্যায় ভোট প্রদানে অংশগ্রহণ করবে এবং মুসলিমরা যত বেশি সংখ্যায় ভোট প্রদানে অংশগ্রহণ করবে ততই মঙ্গল হবে  কংগ্রেসের। কারণ বেশিরভাগ হিন্দু কংগ্রেসকে ভোট দেবে না এটা যেমন সত্য তেমনি বেশিরভাগ মুসলিম কংগ্রেসকে ভোট দেবে এটাও সত্য। এই সম্পর্কে মুখ খুলে আবার বিতর্কে জড়িয়েছেন কংগ্রেস নেতা কমলনাথ।

কমলানাথ কংগ্রেস কার্যকর্তাদের বলেছেন সেই সমস্থ বুথের তথ্য বের করে আনুন যেখানে মুসলিম ভোটার বেশি কিন্তু ৫০-৬০% ভোটিং হয়। সেই সমস্থ জায়গায় ৯০% ভোটিং করান। কমলনাথ চান যেসব মুসলিম বহুল এলাকায় কম সংখ্যায় মানুষ ভোট প্রদান করে সেখানের মানুষ যেন বেশি সংখ্যায় ভোট প্রদান করতে বের হয়। কারণ মুসলিমদের বেশিরভাগ জন কংগ্রেসকে ভোট দেবে যাতে কংগ্রেস লাভ তুলতে পারবে।

কার্যকর্তাদের উদ্দেশ্য কমলনাথের বক্তব্য মুসলিমদের ৯০% ভোট হলে কংগ্রেসের লাভ হবে। কিন্তু যদি মুসলিমদের ভোট সামান্য কম হয় তাহলে বিপদে পড়বে কংগ্রেস। তাই মুসলিমদের একজোট করে বেশি শতাংশে ভোট করতে চান কমলনাথ। মুসলিমরা কম সংখ্যায় ভোট দিলে কংগ্রেসের ক্ষতি হবে যেটা কোনোভাবেই হতে দিতে চান না এই বরিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা।

কমলানাথ কংগ্রেসি কার্যকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন মুসলিম বহুল এলাকাগুলোর সমস্থ তথ্যে বের করার জন্য এবং একই সাথে মুসলিমদের ভোট প্রদানে উৎসাহিত করার জন্য। স্মরণ করিয়ে দি, কমলানাথ সেই কংগ্রেস নেতা যিনি ভোটের পর হিন্দুদের দেখে নেবেন বলে মন্তব্য করেছেন। জানিয়ে দি বর্তমানে মধ্যপ্রদেশের নির্বাচনে কংগ্রেসের প্রধান মুখ হলেন কমলানাথ।