Press "Enter" to skip to content

মধ্যপ্রদেশের সরকার গঠনের পরের দিনই বড়ো দুর্নীতি করলো কংগ্রেস! কমলনাথ করলো মিথ্যা দাবি।

মধ্যপ্ৰদেশে কংগ্রেস সরকার গঠনের প্রথম দিনেই বড়ো ঘটালা করে দেওয়া হয়েছে। কংগ্রেস পার্টি যে কারণের জন্য দেশজুড়ে কুখ্যাত সেই কাজ সরকার গঠনের প্রথম দিনেই করে দিলো কংগ্রেস সরকার। কংগ্রেস এমনি এমনি বিশ্বের সবথেকে দুর্নীতিগ্রস্থ পার্টি নয়, ে সরকার তৈরি হতেই কংগ্রেস সেই কাজ করে দেখিয়েছে। স্মরণ করিয়ে দি, মুখ্যমন্ত্রী পদে বসার পর কৃষক ঋণ মাফের একটা চিঠিতে সাক্ষর করেন। যদিও চিঠিতে যে শর্ত দেওয়া হয়েছিল সেই হিসেবে মধ্যপ্রদেশের মাত্র ৯% কৃষকের লোন মাফ হতে পারবে, বাকি ৯১% কৃষকের লোন মাফ হবে না।

তবে এখন আপনাদের জানিয়ে দি, এই ৯% কৃষকের লোন মেটানোও হবে। কারণ কংগ্রেস এর মধ্যেও একটা বড় গেম প্ল্যান খেলেছে। আসলে কমলানাথ যখন ঘোষণাটি করেছেন তখন মন্ত্রী মন্ডল তৈরি হয়নি। কোনো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কখনো মন্ত্ৰীমন্ডল গঠনের আগে সিধান্ত নিতে পারে না, যদি সিদ্ধান্ত নিয়েও নেয়, তবুও সেটা অসাংবিধানিক বলে গণ্য হবে। অর্থাৎ মিডিয়া ও কমলানাথ মিলে যে মিথ্যা আশ্বাস দিয়েছেন সেটা কোনোভাবেই পূরণ হবে না।

কেবিনেট মিটিং ছাড়া কোনো সিধান্ত নেওয়া সম্ভব নয়। স্পষ্ট কথা এই যে কৃষকদের ১ টাকাও ঋণ মাফ হবে না, অথচ কংগ্রেস পুরো পরিকল্পনা মাফিক মিডিয়ার কাছে নিজেদের বড়ো করে তুলে ধরছে। এটাই মধ্যপ্রদেশে করা প্রথম দিনের সবথেকে বড় দুর্নীতি যেখানে কৃষকদের ১ টাকাও ঋণ মাফ না করে ভুয়ো ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে।

কংগ্রেস পরবর্তী কালে এই ঋণ মাফ না করার ইস্যু বিজেপির উপর চাপিয়ে দেবে এবং দাবি করবে যে বিজেপির কারণে তারা ঋণ মাফ করতে পারেনি। অথচ সত্য এটাই যে ঋণ মাফ করার কোনো রকম চিন্তাভাবনা রাহুল গান্ধী বা কমলনাথের নেই।

6 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.