Press "Enter" to skip to content

এবার খোলাখুলি ওসামা বিন লাদেনকে সমর্থন করলেন বামপন্থী নেতা কানাইয়া কুমার।

আমেরিকার উপর 9/11 যে হামলা হয়েছিল তাতে প্রায় ৩ হাজারের থেকে বেশি মানুষের প্রান গিয়েছিল। এই ঘটনায় ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারকে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। পুরো বিশ্ব জানে যে ওই আক্রমণ ওসামা বিন লাদেন করিয়েছিল। এই আক্রমণের পেছনে ইসলামিক আতঙ্কি সগঠনের হাত ছিল। এমনকি ইসলামিক জঙ্গি সংগঠন এই হামলার দায় স্বীকার করেছিল। কিন্তু বামপন্থী নেতা কানাইয়া কুমার 9/11 হামলার জন্য ওসামা বিন লাদেনকে ক্লিন চিট দিয়েছে এবং এই হামলাকে আমেরিকার কারনামা বলে দাবি করেছে। কানায়াই কুমারের মত অনুযায়ী ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারকে ওসামা বিন লাদেন নয় বরং আমেরিকা নিজেই ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারকে ভেঙে ফেলেছিল। কানায়াই কুমার বলেছেন তিনি YOU TUBE এ একটা ভিডিও দেখেছেন। আর ভিডিও দেখে বুঝতে পেরে গেছেন যে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার তো আমেরিকা ভেঙেছিল এবং পুরো ঘটনা আমেরিকার ষড়যন্ত্র ছিল।

9/11 ঘটনার জন্য কানয়াই কুমার খোলাখুলি জঙ্গি ওসামা বিন লাদেনকে সমর্থন করে দেন। আসলে এই বামপন্থী নেতা এমনটা বলেছে কারণ ইনি যেভাবেই হোক ইসলামিক আতঙ্কবাদকে বাঁচাতে চাইছেন। বামপন্থী নেতার বক্তব্য, আমেরিকা তো নিজেই 9/11 হামলা করিয়েছে তাহলে ওসামা বিন লাদেন কিভাবে জঙ্গি হতে পারে। কানাইয়া কুমারের বলার উদেশ্য এই যে ওসামা বিন লাদেন তো একটা নির্দোষ ব্যাক্তি, বিনা কারণে উনাকে জঙ্গি বলা হচ্ছে।

আসলে বামপন্থী নেতারা বার বার ইসলামিক জঙ্গি সংগঠনের উপর মাটি চাপা দেওয়ার কাজ করে কারণ এদের একটাই লক্ষ, কোনোভাবে যেন জনগণ ও সরকার মিলিতভাবে জঙ্গি তৈরির মূল উৎস বা আতঙ্কবাদের গোড়াকে চিহ্নিত না করে ফেলে। আজ কানাইয়া লাদেনকে নির্দোষ বলে দাবি করে আমেরিকার উপর দোষ চাপাচ্ছে কাল এই বামপন্থী নেতা এটাও দাবি করতে পারে যে, পাকিস্থান ভারতে জঙ্গি প্রবেশ করায় না বরং ভারত নিজেদের সৈনিকদের নিজেরাই হত্যা করে।

দেখুন ভিডিও-

এর আগে কানাইয়া কুমার বলেছিলেন, বেকারত্বের জন্য, গরিবীর জন্য মানুষ জঙ্গি, আতঙ্কবাদী তৈরি হয়। এই বক্তব্যে উপর অবশ্য সেই সময় বিজেপি প্রবক্তা সম্বিত পাত্র কানয়াই কুমারকে কড়া জবাব দিয়েছিলেন। ভারতে তো কত ছাত্র ছাত্রী দেরিতে কাজ পান, তাই বলে কি তারা জঙ্গি আতঙ্কবাদী হয়ে যায়! নাকি ভারতের এত এত গরিব মানুষ কখনো জঙ্গি হয়েছিলেন? সবথেকে আশ্চর্য এর বিষয় এই যে ওসামা বিন লাদেন, হাফিজ শাহিদ এই সকল জঙ্গীরাই ধনীর তালিকাতেই পড়েন তা সত্বেও বামপন্থীরা দাবি করে গরিবীর জন্য মানুষ জঙ্গি হয়। এই রকম মন্তব্য যে গরিবদের অপমান করা তা মানতে চান না কানাইয়া কুমারের মতো নেতারা। আসলে জঙ্গি হওয়া বা আতঙ্কবাদী হওয়াটা মানসিকতা ও ধর্মের নামে ভুল শিক্ষার ফল। যার উপর বরাবর মাটি চাপা দিয়ে যায় বামপন্থীরা।