Press "Enter" to skip to content

এবার রোহিঙ্গা মুসলিমদের সমর্থনে বুদ্ধিজীবী ও বামপন্থীরা যা বললো শুনলে আপনিও রেগে লাল হবেন-Bengali News

মোদী সরকার আজ রোহিঙ্গাদের বের করার কার্যবাহী শুরু করে দিয়েছে। ৭ জন রোহিঙ্গাকে গতকাল কেন্দ্র সরকার খেদিয়ে মায়ানমার পাঠিয়ে দিয়েছে। মায়ানমার বর্ডার পার করিয়ে ৭ রোহিঙ্গাকে মায়ানমার পুলিশের কাছে পৌঁছে দিয়েছে। এই ৭ জন মায়ানমারের ছিল যারা ভারতে অনুপ্রবেশ করেছিল। তবে অনুপ্রবেশ করলেও ভারতে এদের সমর্থনকারী লোকের সংখ্যা কম নেই। ভারতের মহান পরোপকারী বুদ্ধিজীবীরা প্রেম দেখিয়ে আদালত পর্যন্ত হাজির হয়েছিল। যদিও শেষমেষ আদালত রোহিঙ্গাদের সমসর্থন দায়ের করা পিটিশন খারিজ করে দেয়। এক নেতা রোহিঙ্গাদের নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন যা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে তুমুল চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে। নেতা সুনিত চোপড়া বলেছেন, “ভারতে রোহিঙ্গাদের থাকার অধিকার আছে। ছাড়া ভারত একটা কুশ্রী দেশ।

ভারত তখনই সুন্দর দেশ হবে যখন সকলকে স্মরণ দেওয়া হবে। রোহিঙ্গারা ভারতে থাকলে ভারতের সৌন্দর্য্যতা বাড়বে। রোহিঙ্গাদের ভারত থেকে বের করা খুবই খারাপ একটা কাজ।” সুনিত চোপরার কথার উপর মন্তব্য করে বিখ্যাত সাংবাদিক রোহিত সারদানা বলেন, রোহিঙ্গারা ভারতে আতঙ্কবাদী গতিবিধি চালায়। এরপর বামপন্থী নেতা তথা বলেন, ভারত রোহিঙ্গাদের জ্বালাতন করে তাই ওরা আতঙ্কবাদী কার্যকলাপে লিপ্ত হয়।

রোহিঙ্গা - Rohinga
রোহিঙ্গা –

সুনিত চোপড়া এটাও বলেন যে রোহিঙ্গাদের ভারত থেকে বের করার জায়গায় ওদের সম্পুর্ন নাগরিকত্ব দেওয়া উচিত এবং যে সমস্থ রোহিঙ্গা মুসলিমরা ভারতের আসতে চাই তাদের সম্মানের সাথে ভারতে আনা উচিত এতে ভারতের সুন্দরতা বৃদ্ধি পাবে। বুদ্ধিজীবীরা বলেন, যদি রোহিঙ্গাদের বের করা হয় তাহলে মাবতা শেষ হয়ে যাবে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, সুনিত চোপড়া রোহিঙ্গাদের ভারতে থাকা সমর্থন করলেও নিজের বাড়িতে একটাও রোহিঙ্গা ঢুকিয়ে বাড়ির সৌন্দর্য্যতা বাড়ায়নি।

জানিয়ে দি, রোহিঙ্গা মুসলিমরা অপরাধমূলক কাজের জন্য কুখ্যাত। মায়ামনারে এই রোহিঙ্গা মুসলিমদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে দেশ ভাগের দাবি তুলেছিল। মায়ানমারে বহু বৌদ্ধ ও হিন্দু হত্যায় লিপ্ত ছিল এই রোহিঙ্গা মুসলিমরা। শুধু এই নয় ভারতে এসেও রোহিঙ্গা মুসলিমরা জঙ্গি ও আতঙ্কবাদীরা মিলে সুনজুয়া সেনা ছাউনিতে হামলা চালিয়ে ছিল।