Press "Enter" to skip to content

CM যোগীর সাথে সাক্ষাৎ করল মুসলিম ধর্মগুরুরা, পাঁচ একর জমি নিয়ে করল এক বিশেষ আবেদন

লখনউঃ অযোধ্যা () বিতর্ক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের () সিদ্ধান্ত আসার পর সোমবার বিকেলে শিয়া আর সুন্নি মুসলিম ধর্মগুরুরা উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সাথে সাক্ষাৎ করেন। প্রায় এক ঘণ্টা চলা এই বৈঠকে মুসলিম ধর্মগুরুরা () মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের () কাছে অযোধ্যাতে মসজিদ বানানোর জন্য এমন এক জমি দাবি করেছেন, যেখানে ইসলামিক ইউনিভার্সিটিও নির্মাণ করা যেতে পারে। ধর্মগুরুরা সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে এবং সিদ্ধান্তের পর রাজ্যে শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় রাখার জন্য মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রী মোহসিন রাজার নেতৃত্বে বরিষ্ঠ শিয়া এবং সুন্নি ধর্মগুরুদের প্রতিনিধি মণ্ডল মুখ্যমন্ত্রী যোগীর সাথে সাক্ষাৎ করে। প্রতিনিধি মণ্ডলে মৌলানা হামিদুল হাসান, মৌলানা সালমান হুসেইন নদবি, মৌলানা ফরিদুল হাসান, মৌলানা হুসেইনি এর সাথে আরও ১৫ জন শিয়া এবং সুন্নি ধরমগুরুরা প্রায় এক ঘণ্টা যোগী আদিত্যনাথের সাথে বৈঠক করেন। মুসলিম ধর্মগুরুরা সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান, আর মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে এই মহত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তকে শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রদেশে লাগু করার জন্য শুভেচ্ছা জানান।

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সমস্ত বরিষ্ঠ ধর্মগুরুদের শান্তির আবেদন আর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য সহায়তা করাতে শুভেচ্ছা জানান। উনি সমস্ত ধর্মগুরুদের রাজ্যে সংখ্যালঘুদের জন্য চালানো যোজনার ব্যাপারে তথ্য দেন। এর সাথে সাথে ওই যোজনা গুলো সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কল্যাণের খাতিরে উপযোগ করা এবং সেগুলোর সম্বন্ধে জাগরণ অভিযান চালানোর আবেদন করেন।

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সংখ্যালঘুদের উন্নয়ন এবং উত্থানের জন্য রাজ্য সরকারের তরফ থেকে যথা সম্ভব সাহায্য করার আশ্বাস দেন। এর সাথে সাথে উনি এও বলেন যে, যদি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কাউকে অকারণে বিরক্ত করা হয়, অথবা কোন আধিকারিক/কর্মচারী পক্ষপাতিত্ব করে, তাহলে সেটির সূচনা তৎক্ষণাৎ যেন ওনাকে দেওয়া হয়।