Press "Enter" to skip to content

সুর নরম করে শিবসেনা জানাল, বিজেপি সরকার গড়ার দাবি জানালে আপত্তি করবেনা আমরা

মুম্বাইঃ ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পর প্রায় ১৫ দিন হতে চলল, এখনো মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন নিয়ে অনিশ্চয়তা লেগেই আছে। বিজেপি রাজ্যের সবথেকে বড় দল হয়ে উঠে এসে যেমন মুখ্যমন্ত্রী পদের দাবি করেছে। তেমনই বিজেপির সহযোগী দল শিবসেনাও মুখ্যমন্ত্রী পদের দাবি জানিয়েছে। কিন্তু বিজেপির তরফ থেকে শিবসেনার এই দাবি সম্পূর্ণ ভাবে নাকোচ করে দেওয়া হয়েছে। আরেকদিকে শিবসেনার তরফ থেকে ৫০-৫০ এর ফর্মুলায় সরকার গঠন করার প্রস্তাব রাখা হয়েছিল।

৫০ পঞ্চাশ এর ফর্মুলা হল রাজ্যে আড়াই বছর করে দুই দলই শাসন করবে। কিন্তু বিজেপির তরফ থেকে শিবসেনার সেই দাবিও নাকোচ করে দেওয়া হয়। এরপরই দুই দলের মধ্যে দূরত্ব বাড়তে থাকে। আরেকদিকে মহারাষ্ট্র থেকে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ দাবি করেছিলেন যে, শিবসেনার ৪০ এর উপরে বিধায়ক বিজেপিকে নিঃশর্ত ভাবে সমর্থন দেওয়ার জন্য প্রস্তুত। এমনকি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন যে, দশ জন নির্দলীয় বিধায়ক আমাদের সমর্থন দেওয়ার জন্য প্রস্তুত। কিন্তু এরপরেও কেউ সরকার গঠনের দাবি পেশ করেনি।

ফলাফল ঘোষণা এতদিন অতিক্রান্ত হয়ে যাওয়ার পরেও সরকার গঠনের দাবি না করায়, রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসনের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। আর এর মধ্যে শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত রাজ্যের বিরোধী দল এনসিপি এর প্রধান শরদ পাওয়ারের সাথে আলোচনা করে সমর্থন জোটানোর চেষ্টা চালিয়েছেন বলে সুত্রের খবর। কিন্তু পরে শরদ পাওয়ার জানিয়েছেন যে, মহারাষ্ট্রের জনগণ চায়না আমরা ক্ষমতায় আসি, তাই আমরা বিরোধী আসনেই বসব।

আরেকদিকে বিজেপি নেতা Sudhir Mungantiwar বলেন, আপনি যতই চেষ্টা করেন না কেন জল কোনদিনও ভাগ করতে পারবেন না। শিবসেনা আর বিজেপি একসাথেই আছে, কৃষকদের ইস্যু নিয়ে আজ আমরা বৈঠক হয়েছে। আমরা খবরের অপেক্ষায় আছি। ভালো খবর যখন তখন আসতে পারে। এরপর শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত বলেন, আমরা রাজ্যপালের সাথে দেখা করেছি। আরপিআই পার্টির রামদাস আটাবলের সাথে সাক্ষাৎ করেছি। বিজেপি নেতারা যদি রাজ্যপালের সাথে দেখা করে সরকার গঠনের দাবি জানায়, তাহলে তাঁদের সরকার গঠন করে ফেলা উচিত। ওঁরা সবথেকে বড় দল। ওঁরা সরকার গড়ার দাবি জানালে আমাদের কোন আপত্তি নেই।

you're currently offline